NarayanganjToday

শিরোনাম

মাহমুদার বাড়িতে শোকের মাতম, মেডিক্যাল পরীক্ষা দেওয়া হলো না সুমাইয়ার


মাহমুদার বাড়িতে শোকের মাতম, মেডিক্যাল পরীক্ষা দেওয়া হলো না সুমাইয়ার

স্কুল শেষে বাড়ি ফেরার পথে স্কুলেরই কাছে প্রধান শিক্ষিকা ইজিবাইক চাপায় নিহত হন। শুক্রবার মাসদাইর এলাকায় পুলিশ লাইন্সের সামনে ঘটে এই ঘটনা। নিহত মাহমুদা বেগম পুলিশ লাইন্স স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা ছিলেন।

এদিকে মাহমুদার এমন মৃত্যুতে মুষড়ে পড়েছেন তার পরিবারের সবাই। তাদের একজন সুমাইয়া ফারহা তিথি। সে পড়ছে ঢাকার সেন্ট্রাল ইন্টারন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজে। শনিবার ছিলো তার প্রথম বর্ষের ট্রাম পরীক্ষা। কিন্তু মা হারানোর শোকে বিহ্বল ফারহা এই অবস্থায় যেতে পারেনি পরীক্ষা দিতে।

অন্যদিকে স্ত্রী হারানোর শোক কিছুতেই কাটিয়ে উঠতে পারছেন না মো. মাহাবুব আলম। তিনি পেশায় একজন ব্যবসায়ী। দুই সন্তান স্ত্রী নিয়ে থাকতেন মাসদাইর এলাকায় এন এস টাওয়ারের তৃতীয় তলার ফ্ল্যাটে। সাজানো গুছানো সংসার ছিলো তার। দ্বিতীয় মেয়ে লাবিবা তাহসীন শহরের মাসদাইর গভর্মেন্ট গার্লস স্কুলের ৭ম শ্রেণীর ছাত্রী।

মাহাবুব আলম কান্না জড়িত কণ্ঠে বলেন, আমার সংসারটি খুবই সাজানো গুছানো ছিলো। দুই মেয়ে নিয়ে সুখের সংসার আমার। কতবার বলেছিলাম চাকরি করো না। ও ছিলো বি এড ডিগ্রীধারী। ও চাকরিটা করতো সময় কাটানোর জন্য। এদিন স্কুলের বাচ্চাদের পরীক্ষা ছিলো। পরীক্ষা নিয়েই সে বাড়ি ফিরছিলো। অমনি একটা ইজিবাইক আমার পুরো সংসারটা তছনছ করে দিলো।

এদিকে শনিবার (৯ নভেম্বর) দুপুর আড়াইটায় মাসদাইর এন এস টাওয়ার তিন তলা শোকার্ত পরিবারকে সমবেদনা জানাতে হাজির হন নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাহিদা বারিক। তিনি মাহমুদার দুই মেয়েকে জড়িয়ে ধরে সান্ত¦ানা দেন এবং যে কোন প্রয়োজনে পরিবারের পাশে জেলা প্রশাসন আছে বলে আশ্বস্ত করেন। ওই সময় তিনি শোকাহত পরিবারকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আর্থিক অনুদান প্রদান করেন।

ইউএনও নাহিদা বারিক সাংবাদিকদের জানান, অটো রিকাশা বিরুদ্ধে আইনগত দিক বিবেচনা করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এই অটো রিকশাগুলোর কোনো বৈধতা নেই। এ বিষয়ে আমরা পর্যালোচনা করে ব্যবস্থা নেব।

এদিকে মাসদাইর এন এস টাওয়ারের বাসিন্দা আলিমুদ্দিন জানান, ঢাকা- নারায়ণগঞ্জ পুরাতন পাগলা পুলিশ লাইন সড়ক দিয়ে যেসব ইজিবাইক চলাচল করছে এগুলোর কোনো আইনগত বৈধতা নেই। তারপরে কোন ক্ষমতাবলে এগুলো সড়কে চলছে তা প্রশাসন ভালো বলতে পারবে।

প্রসঙ্গত, শুক্রবার বিকেশ দিকে ঢাকা নারায়ণগঞ্জ পুরাতন সড়কে সদর উপজেলার ফতুল্লা থানার মাসদাইর এলাকায় শিক্ষিকা মাহমুদা স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে রাস্তা পার হচ্ছিলেন। এ সময় একটি (অটোরিকশা) ইজিবাইক দ্রুত গতিতে এসে তাকে চাপা দেয়। এতে তিনি রাস্তায় পড়ে গিয়ে মাথায় আঘাত পান। খবর পেয়ে স্বজনরা এসে মাহমুদা বেগমকে উদ্ধার করে প্রথমে শহরের খানপুর এলাকায় অবস্থিত ৩শ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে নিয়ে গেলে জরুরি বিভাগের চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ঢাকা মেডিক্যালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। পরে ঢাকা মেডিক্যালে নেওয়ার পপথে তিনি মারা যান। শনিবার সকাল ৮ টায় জানাজা শেষে মাহমুদার লাশ ফতুল্লার মাসদাইর কবরস্থান দাফন করা হয়েছে।

এ বিষয়ে ফতুল্লা মডেল থানার ওসি আসলাম হোসেন জানান, ইজিবাইকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

৯ নভেম্বর, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে