NarayanganjToday

শিরোনাম

গ্যাস চোর সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে মামলা


গ্যাস চোর সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে মামলা

বন্দরে অবৈধ গ্যাস চোর সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে মামলা করেছে তিতাস গ্যাস টি এন্ড ডি কোম্পানি।

বৃহস্পতিবার (১৪ নভেম্বর) দুপুরে কোম্পানির সোনারগাঁ আঞ্চলিক কর্যালয়ের ব্যবস্থাপক প্রকৌমলী মো. জাফরুল আলম বাদী হয়ে বন্দর থানায় এ মামলা দায়ের করেন।

মামলায় আসামিরা হলেন, বন্দরের বাগবাড়ি এলাকার ইব্রাহীম মিয়ার ছেলে গ্যাস চোর সিন্ডিকেটের হোতা রমজান, পূর্ব কুশিয়ারা এলাকার মনু মিস্ত্রীর ছেলে জামান মাস্টার, সামসুল হক, রিয়াজুল হক সাধু, সাইদুর রহমান, সালাম মেম্বার, রহিম মেম্বার, মিনহাজ, মঞ্জুর রহমানসহ অজ্ঞাত আরও কয়েকজন।

এজাহারে উল্লেখ করা হয়, গত ৪ নভেম্বর তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষ বন্দর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শুক্লা সরকারের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে র‌্যাব ও পুলিশসহ সোনারগাঁ তিতাসের আঞ্চলিক অফিসের উপ ব্যবস্থাপক প্রকৌশলী মো. মিজবাহ-উর-রহমান, প্রকৌশলী মো. রিফতা আব্দুল্লাহ, সহ ব্যবস্থাপক মো. সারোয়ার হোসেন, সহ উপ ব্যবস্থাপক মাসুদুল হক, উপ পরিদর্শক মোহাম্মদ আলী উপস্থিত থেকে তিনগাঁও থেকে কাইকারটেক পর্যন্ত ৪ হাজার ৩শ ও ২ হাজার ৩শ ফুট অবৈধ বিতরণ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে। এতে ৭শ থেকে ৮শ বাড়ির অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এ সকল সংযোগ থেকে প্রায় ২০ হাজার পরিবার অবৈধ গ্যাস ব্যবহার করত। তিতাস কর্তৃপক্ষ অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার পর গাস চোর সিন্ডিকেটরা ৫ নভেম্বর থেকে ১২ নভেম্বরের মধ্যে রাতের আধারে সেই বিচ্ছিন্নকৃত অবৈধ সংযোগ পুনরায় চালু করে সরকারের ব্যাপক ক্ষতি সাধন করে গ্যাস আইন ২০১০ এর ১০ ধারায় অপরাধ করে।

এলাকাবাসী জানান, গ্যাস চোর সিন্ডিকেটের হোতা রমজানের নেতৃত্বে রাতে মিস্ত্রী এনে তড়িঘড়ি করে মাটি খুড়ে পুনরায় গ্যাস সংযোগ দেয়া হয়।

এ ব্যাপারে বন্দর থানার ওসি রফিকুল ইসলাম জানান, তিতাস কর্তৃপক্ষ এজাহার দিয়েছে তা মামলা হিসাবে নেয়া হয়েছে। আমরা আসামিদের গ্রেফতার অভিযান চালানো হচ্ছে।

১৪ নভেম্বর, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে