NarayanganjToday

শিরোনাম

ফতুল্লায় ভয়াবহ আগুনে ২০ ঘরের সাথে পুড়লো গার্মেন্টকর্মী শম্পা


ফতুল্লায় ভয়াবহ আগুনে ২০ ঘরের সাথে পুড়লো গার্মেন্টকর্মী শম্পা
প্রতীকি ছবি

ফতুল্লায় ভয়াবহ এক অগ্নিকা-ের ঘটনায় শম্পা ইসলাম নামের একজন গার্মেন্ট শ্রমিক দগ্ধ হয়ে মারা গেছে। শুক্রবার (২২ নভেম্বর) সন্ধ্যা ৭ টার দিকে মুসলিম নগরের ইউনুস সরদারের বাড়িতে এই ঘটনা ঘটে।

নিহত শম্পা ইসলাম মুন্সিগঞ্জের লৌহজংয়ের পলমা এলাকার সুমনের স্ত্রী। তারা ইউনূস সরদারের বাড়িতে ভাড়ায় বসবাস করতো।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, সন্ধ্যা ৭ টার দিকে বিদ্যুতের শর্টসার্কিট থেকে ইউনুস সরদারের বাড়িতে আগুনের সূত্রপাত। আগুন মুহূর্তের মধ্যে পুড়ো বাড়িতে ছড়িয়ে পড়ে। এতে বিশটি ঘর ভষ্মিভূত হয়। এ ঘটনায় ওই বাড়ির একটি কক্ষে অগ্নিদগ্ধ হয়ে মারা যায় গার্মেন্টকর্মী শম্পা ইসলাম। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন তার স্বামী সুমন।

এদিকে আগুনের খবর পেয়ে বিসিক ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের একটি ইউনিট গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণ করে। তবে, ততক্ষণে যা ক্ষতি হবার হয়ে যায়। সর্বস্ব হারায় ইউনুস সরদারের বাড়ির বেশ কয়েকজন ভাড়াটিয়া।

এদিকে অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান সদর উপজেলা পরিষদের নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) নাহিদা বারিক, ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আসলাম হোসেনসহ অনেকেই।

ঘটনাস্থলে যাওয়া ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশের অফিসার-ইন-চার্জ (ওসি) মো. আসলাম হোসেন বলেন, সন্ধ্যার মাগরিবের নামাজের পরপরই আগুন লাগে। কীভাবে আগুনের সূত্রপাত তা এখনও ফায়ার সার্ভিস নিশ্চিত করতে পারেনি। ওই বাড়িতে গ্যাসের লাইনও নেই। ওই বাড়ির প্রতিটি ঘরই টিনের।

তিনি বলেন, আগুনে প্রায় বেশ কয়েকটি ঘর পুড়ে গেছে। অন্যান্য ঘরের লোকজন আগুন লাগার পরপর বের হয়ে আসতে পারলেও শম্পা বের হতে পারেনি। সে ঘরের ভেতরই দগ্ধ হয়ে মারা যায়। এ ঘটনায় তার স্বামী সুমনও আহত হয়েছে। লাশ উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

২২ নভেম্বর, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে