NarayanganjToday

শিরোনাম

আসামীর স্ত্রীকে ফ্ল্যাটে এসে রাত কাটানোর কু-প্রস্তাব দিলেন এএসআই!


আসামীর স্ত্রীকে ফ্ল্যাটে এসে রাত কাটানোর কু-প্রস্তাব দিলেন এএসআই!

নানা সময় নানা ভাবেই গুটি কয়েক পুলিশ সদস্য নানা ধরণের বতির্কে জড়িয়ে যান। তবে, এবার একজন আসামীর স্ত্রীকে নিজের বিছানায় ডেকে রাত কাটানোর প্রস্তাব দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার বেলায়েত নামে এক এএসআই’র বিরুদ্ধে।

তবে, অভিযুক্ত এসআই বেলায়েত এ সম্পর্কে কোনো কথা বলতেই রাজি হননি। ঘটনাটি সত্য না মিথ্যা তা জানতে তাকে তিনবার ফোন করা হলেও তিনি ব্যস্তার অজুহাত তুলে বারবারই লাইন কেটে দেন যখন অভিযোগের প্রসঙ্গটি উঠে আসে।

সূত্র বলছে, সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইলের ভূমি আবাসন এলাকার গাড়ি চালক দেলোয়ার আহমেদ আকাশ ফারজানা আক্তার নামে এক নারীকে বিয়ে করেন ২০০৯ সালে। পরবর্তী ২০১৭ সালের ২৩ জানুয়ারি তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। এরপর সে ২০১৮ সালের ৫ অক্টোবর শ্রাবন নামে এক নারীকে বিয়ে করেন। কিন্তু ডিবি পুলিশের সাথে সুসম্পর্কের জের ধরে আকাশের দ্বিতীয় স্ত্রী ডিবি দিয়ে কয়েক দফা হয়রানিও করেন।

আকাশের দাবি, তার সাবেক স্ত্রী সিদ্ধিরগঞ্জ থানার আবুল কালাম আজাদ, শাহাদাত, বেলায়ত এবং রফিকুলের সাথে অনৈতিক সম্পর্ক রয়েছে।

তিনি বলেন, ১৫ অক্টোবর ছেলে অসুস্থ খবর পেয়ে আমি আমার সাবেক স্ত্রীর বাসায় যাই। অই সময় এএসআই বেলায়েত ও শাহাদাত সেখান থেকে আমাকে আটক করে। তখন বেলায়েত আমার স্যামসাং নোট ৩, স্যামসাং গ্র্যান্ড প্রাইম, এবং স্যামসাং দুওস, চাবির ব্যাগ, লেজার লাইট, টচ লাইট, স্যামসাং ডাটা কেবল, ১৭ হাজার ২২৫ টাকাসহ মানিব্যাহ, ড্রাইভিং লাইসেন্স, ন্যাশনাল আইডি কার্ড, ব্লাড ডোনার কার্ড, এটিএম কার্ড, ব্যাংকের একাউন্ট স্লিপসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে যায়। এরমধ্যে একটি মোবাইল বেলায়েত আমার সাবে স্ত্রীর কাছে দিয়ে দেয়। সে ফোনে আমার বর্তমান স্ত্রীর সাথে আমার অন্তরঙ্গ কিছু ছবি ছিলো। যা আমার ইমু একাউন্ট থেকেই বিভিন্ন জনের নম্বরে প্রেরণ করে আমার সাবেক স্ত্রী ও বেলায়েত।

আকাশ বলেন, ওই ঘটনায় ২২ অক্টোবর জামিন নিয়ে জেল থেকে বের হলে গেটের থেকেই বেলায়েত ও শাহাদাত আমাকে ৫৪ ধারায় গ্রেফতার করে। পরে ২ অক্টোবর আবারও জামিন নিয়ে বের হয়ে আসি।

তিনি আরও বলেন, গ্রেফতারের পর আমার কাছ থেকে রেখে দেওয়া জিনিসপত্র চাইতে থানায় যোগাযোগ করি। কিন্তু এতে বেলায়েত উল্টো হুমকি দিতে শুরু করেন। এ ঘটনা জানতে পেরে এএসআই বেলায়েতের সাথে যোগাযোগ করেন। এবং জব্দ করা জিনিসপত্র নিতে হলে এএসআই বেলায়েত শ্রাবনকে তার সাথে হিরাঝিলের একটি ফ্ল্যাটে একই বিছানা রাত কাটানোর প্রস্তাব দেন। শুধু তাই নয়, এরপর থকে প্রায় সময় বেলায়েত শ্রাবনকে ফোন করে তার সাথে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করার প্রস্তাব দিয়ে আসছে।

এদিকে এ প্রসঙ্গে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশের অফিসার-ইন-চার্জ (ওসি) মো. কামরুল ফারুক বলেন, এ ব্যাপারে জানতে আরও একজন সাংবাদিক ফোন করেছিলো। কিন্তু বিষয়টি আমার জানা নেই। কেউ আমাকে কোনো অভিযোগও করেনি। যদি বেলায়েত এমন ঘটনা ঘটিয়ে থাকে এবং কেউ যদি অভিযোগ দেয় তাহলে তদন্ত মোতাবেক তার উপযুক্ত শাস্তি হবে এটুকু নিশ্চিত দিতে পারি।

২ ডিসেম্বর, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে