NarayanganjToday

শিরোনাম

সদরে প্রতিবন্ধি শিশুদের জন্য পার্ক নির্মাণের ঘোষণা


সদরে প্রতিবন্ধি শিশুদের জন্য পার্ক নির্মাণের ঘোষণা

সদর উপজেলার ইউএনও নাহিদা বারিক বলেন, আমি শিশুদের সাথে না, মায়েদের সাথে কথা বলব। আজকে প্রতিবন্ধী শিশুদের জন্য মায়েরা সব সময় মাথা নিচু করে রাখে। মায়েরা কথা বলতে গেলে কথা আটকে যায়। দেখেন আমার সামনে যারা আছেন, তাদের চোখ দিয়ে পানি পড়ছে। আপনি কখনো মনে করবেন না এই সন্তানটি আপনার অভিশাপ। আপনার কোনো কাজের ফল কি এই বাচ্চাটা। না! আপনাদের এখান থেকে বেরিয়ে আসতে হবে।

সোমবার (২ ডিসেম্বর) সকালে সদর উপজেলা মিলনায়তন কক্ষে ১শ ২১ টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও অভিবাবকদের নিয়ে অবহিতকরন সভায় তিনি এ কথা বলেন।

নাহিদা বারিক বলেন, হঠাৎ করে মনে হলো আপনাদের ডাকা দরকার। আমি কিছুদিন আগে একটি স্কুলে গিয়েছিলাম। অইখানে গিয়ে আমি স্কুলের বাচ্চাদের টিফিন বক্স দিয়েছিলাম। সেখান থেকে যখন গাড়িতে উঠব তখন এক মহিলা আমার আচল ধরে টান দিলো। আমার লোকেরা বাধা দিলো তাকে। মহিলার দিকে যখন তাকালাম সাথে সাথে দেখলাম তার চোখ দিয়ে পানি পড়ছে। আমি বললাম কান্না কইরেন না, কি হয়েছে আমাকে বলেন। উনি কান্না থামিয়ে যখন শিশুটিকে বের করলেন তখন আমার আর বোঝার বাকি রইল না। কি সুন্দর এক ফুটফুটে বাচ্চা প্রতিবন্ধী।

তিনি বলেন, আমি কতদিন আছি তা জানি না। তবে আমি আপনাদের কথা দিচ্ছি, নারায়ণগঞ্জ সদরে আমি প্রতিবন্ধীদের জন্য একটি পার্ক করে দিয়ে যাবো। আমার এখানে তিন চেয়ারম্যান রয়েছে, আমি তাদেরকে অনুরোধ করছি, আপনারা একটু জায়গা দিয়ে সহায়তা করবেন।

এতে আরও উপস্থিত ছিলেন, নারায়নগঞ্জ সদর উপজেলার চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ বিশ্বাস, কুতুবপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মনিরুল আলম সেন্টু, নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার শিক্ষা অফিসার মনিরুল হক, ফতুল্লা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান খন্দকার লুৎফুর রহমান সপন প্রমূখ।

অনুষ্ঠান শেষে তিনি ৫০ জন প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীর মাঝে পেন্সিল বক্স বিতরণ করেন এবং প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের বাবা-মাকে নিয়ে ছবি তুলেন।

২ ডিসেম্ভর,২০১৯/এমএ/এনটি

উপরে