NarayanganjToday

শিরোনাম

পাকিস্তানও আমাদের অনুকরণ করে বাহবা দিচ্ছে : আনোয়ার হোসেন


পাকিস্তানও আমাদের অনুকরণ করে বাহবা দিচ্ছে : আনোয়ার হোসেন

নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছিলেন ‘এই দেশে কোনো বিভেদ থাকবে না, ধর্ম-বর্ণে কোনো পার্থক্য থাকবে না।’ সবাইকে নিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু এই দেশের উন্নয়নের যে স্বপ্ন দেখেছিলেন সেই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কাজ করে যাচ্ছেন।

মঙ্গলবার (৩০ অক্টোবর) দুপুরে জেলা পরিষদ কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত শারদীয় দূর্গাপূজা উপলক্ষে পূজা মন্ডপের অনুকূলে চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন তিনি।

অনুষ্ঠানে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের ৪৭টি, আড়াইহাজারের ২৯টি পূজা মন্ডপের দায়িত্বশীলদের হাতে ৩ হাজার টাকা করে চেক তুলে দেয়া হয়। বুধবার তুলে দেয়া হবে সোনারগাঁয়ের ৩৩টি, ও বন্দরের ২৫টি এবং বৃহস্পতিবার তুলে দেয়া হবে সদরে ৬৮টি পূজা মন্ডপের চেক।

বক্তব্যে আনোয়ার হোসেন বলেন, ধর্ম যার যার উৎসব সবার। এই বিশ্বাসকে সামনে রেখে আমরা আমাদের দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি। আমরা আমাদের স্বাধীনতার ডাকে, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের ডাকে আমরা সবাই একসাথে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলাম। আমরা কিন্তু তখন বিভাজন করিনি কে মুসলিম কে হিন্দু কে খৃস্টান। সবাই মিলে যুদ্ধ করে দেশকে স্বাধীন করেছিলাম।

তিনি বলেন, আজকে বাংলাদেশ বিশ্বে উন্নত দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত। বিশ্বে প্রধানমন্ত্রী আজকে বিশ্ব নেত্রী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত। আজকে পাকিস্তানের মত দেশও বাংলাদেশকে অনুকরণ করতে চায়, বাংলাদেশের উন্নয়নে বাহবা দেয়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অধীনেই আগামী সংসদ নির্বাচন হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আজকে ঢাকা যেতে আসতে আমাদের কত অল্প সময় লাগে। অথচ আগে ঘন্টার পর ঘন্টা বসে থাকতে হতো। এই উন্নয়নের অবদান শুধুমাত্র জাতির জনকের কন্যার। আসন্ন নির্বাচনে শুধুমাত্র শেখ হাসিনার এই উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতেই আমাদেরকে যে যাই করি নৌকায় ভোট দিতে হবে। নৌকার বিজয়ই পারে বাংলাদেশকে বিশ্ব দরবারে তুলে ধরতে, শুধুমাত্র উন্নয়ন দিয়ে। বাংলাদেশে আবার নৌকার বিজয় হলে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করবেন আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, আর তাই নৌকার ভোট দেয়ার বিকল্প নেই।

অনুষ্ঠানে জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী সুব্রত পালের সভাপতিত্বে, প্রশাসনিক কর্মকর্তা কে এম রাশেদুজ্জামানের সঞ্চালনায় উপস্থিত ছিলেন সচিব তাসলিমা আক্তার, সদস্য মোস্তফা চৌধুরী, শীলা রানী পাল, অ্যাড. পারভীন আক্তার কবিতা, জেলা পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি শংকর রায়, সাধারণ সম্পাদক সুজন প্রমূখ।

৩০ অক্টোবর, ২০১৮/এসপি/এনটি

উপরে