NarayanganjToday

শিরোনাম

ফের উত্তাল বিসিক : শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষে রণক্ষেত্র, নিহত ১


ফের উত্তাল বিসিক : শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষে রণক্ষেত্র, নিহত ১

আবারও উত্তাল হয়ে ওঠেছে বিসিক শিল্প নগরী। ফকির অ্যাপারেলসের পর এবার বেতন ভাতা বৃদ্ধির দাবিতে পথে নেমেছে এনআর নামে একটি পোষাক কারখানার শ্রমিকেরা। এসময় পুলিশের সাথে তাদের দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়। বিক্ষুব্ধ শ্রমিকেরা বিসিক এলাকায় ব্যাপক ভাঙচুর, তা-ব চালিয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৬ ডিসেম্বর) বেলা সোয়া ১১ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় পুলিশ, শ্রমিকসহ অর্ধশত আহত এবং বুলি নামে এক নারী শ্রমিক নিহত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। আহতদের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। সংঘর্ষের পর পুরো বিসকজুড়ে এখন থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে অবস্থান করছে। তবে, আবারও সংঘর্ষের আশঙ্কা করছে সংশ্লিষ্ট গার্মেন্ট মালিকেরা।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, বিসিকের এনআর গার্মেন্টের শ্রমিকেরা নিজেদের মজুরি বৃদ্ধির দাবি নিয়ে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে বিসিক এলাকায় বিক্ষোভ শুরু করে। তবে, সাড়ে ১০টা পর্যন্ত তারা শান্তিপূর্ণভাবে অবস্থান করে বিক্ষোভ করলেও ১১ টার দিকে শ্রমিকেরা উত্তেজিত হয়ে ওঠে। তারা এলাকায় অন্যান্য গার্মেন্ট থেকে শ্রমিকদের নামিয়ে আনার চেষ্টা করে। এসময় ব্যর্থ হয়ে ভাঙচুর ও অগ্নি সংযোগের আশ্রয় নেয়।

এ ঘটনায় পুলিশ বাধা দিতে গেলে শুরু হয় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষ। এরই মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে এক শ্রমিক নিহত হয়েছে। পরে শ্রমিকদের মধ্যে এমন খবরে উত্তেজনা আরও বেড়ে যায়। এতে করে পুরো বিসিকজুড়ে পরিণত হয় রণক্ষেত্রে।

শ্রমিকদের পক্ষ থেকে দাবি করা হচ্ছে পুলিশ বিনা উস্কানিতে তাদের উপর হামলা চালিয়েছে। পুলিশের লাঠিচার্জে তাদের ৫০ জনেরও বেশি শ্রমিক আহত হয়েছে। তাদেরকে বিভিন্ন হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ শিল্প পুলিশ-৪ এর পুলিশ সুপার মো. জাহিদুল ইসলাম জানান, পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক রয়েছে। সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশের ৯ সদস্য আহত হয়েছে। এছাড়া ১০ থেকে ১৫ জন শ্রমিক আহত হয়। কোনো নিহতের ঘটনা ঘটেনি।

এদিকে ঘটনার সংবাদে বিসিক ছুটে গিয়েছেন বর্তমান সাংসদ শামীম ওসমান। তিনি বিক্ষুব্ধু শ্রমিকদের সাথে কথা বলে পরিস্থিতি শান্ত করার চেষ্টা করেন। সেখানে তিনি শ্রমিকদের উদ্দেশ্যে বক্তব্যও রাখেন।

ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ, সাজোয়া যানসহ প্রস্তুত রয়েছে জলকামান। যে কোনো পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে সক্ষম পুলিশ, দাবি করেছে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ ও শিল্প পুলিশ।

৬ ডিসেম্বর, ২০১৮/এসপি/এনটি

উপরে