NarayanganjToday

শিরোনাম

আমি এই এলাকার এমপি, এটা আমার নির্দেশ : শামীম ওসমান


আমি এই এলাকার এমপি, এটা আমার নির্দেশ : শামীম ওসমান

শ্রমিক মারা যায়নি, এমন আশ্বস্ত করেন সাংসদ শামীম ওসমান। কিন্তু শ্রমিকেরা তা মেনে নিতে চায়নি। ফলে সমস্বরে বলে ওঠে এসব মিথ্যা। শ্রমিক মারা গেছে অনেক আহত হয়েছে। এমন সময় শামীম ওসমান একজন শ্রমিক ডেকে তাকে সাক্ষী করে মাইকে বলায় শ্রমিক মারা যায়নি। তাতেও মানেনি শ্রমিকেরা।

বৃহস্পতিবার (৬ ডিসেম্বর) বেলা সোয়া এগারটার দিকে সংঘর্ষের পর ঘটনাস্থলে ছুটে যান সাংসদ শামীম ওসমান। সেখানে তিনি শ্রমিকদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন। এসময় একজন শ্রমিক এসে দাবি করেন, তার ভাইকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।

শামীম ওসমান সরবার উদ্দেশ্যে বলেন, ‘কোনো শ্রমিক গুরুতর আহত হয়নি কেউ মারা যায়নি। আমি নিজে সেখানে গিয়ে তন্ন তন্ন করে খুঁজে দেখেছি। তারপরও যারা গুরুতর আহত হয়ে থাকে তাদের ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে। আপনারা আমাকে শনিবারের মধ্যে লিস্ট দিন।’

সাংসদ শামীম ওসমানকে আশ্বস্ত করে বলেন, ‘মালিক পক্ষ ন্যায়সঙ্গত দাবি মেনে নিবে। আগামী মাস থেকে এই প্রক্রিয়া শুরু হবে।’ কিন্তু সাংসদের এমন কথাতে আশ্বস্ত হতে পারেনি শ্রমিকেরা। ফলে সকলই সমস্বরে নিজেদের ক্ষোভ প্রকাশ করে চেঁচিয়ে ওঠে। এছাড়াও ক্রোনী, অবন্তী, ফারিয়া গার্মেন্ট থেকে শ্রমিক নিহতের খবরে পথে নেমে আসে হাজার হাজার শ্রমিক।

সাংসদ শামীম ওসমান গার্মেন্ট মালিকদের নির্দেশ দেন, ‘ক্রোনী, ফকির যেভাবে বেতন দেয় সেভাবে সবাই বেতন দিবেন। এটা আমার নির্দেশ।’ 

এদিকে শামীম ওসমানের বক্তব্যের পর এনআর গার্মেন্টের ৭ তলার ৮ নম্বর লাইনের বুলি নামে এক হেলপার মারা গেছে এমন খবর পুরো বিসিকে ছড়িয়ে পড়ে। সে সংঘর্ষ চলাকালে আহত হলে হাসপাতাল নেওয়ার পথে মারা গেছে। শ্রমিকরো এ ঘটনায় আরও বেশি উত্তেজিত হয়ে ওঠে। পুলিশ শ্রমিকের লাশ ঘিরে রেখেছে।

এদিকে পুলিশ বলছে, ভয়ে স্ট্রোক করে মারা গেছে বুলি। তবে, শ্রমিকেরা দাবি করছে পুলিশের ছোড়া গ্যাস ও স্টাফদের সাথে হাতাহাতির ঘটনায় সে মারা গেছে। শ্রমিক নিহতের ঘটনায় পুরো এলাকা এখন থমথমে অবস্থা বিরজা করছে।

৬ ডিসেম্বর, ২০১৮/এসপি/এনটি

উপরে