NarayanganjToday

শিরোনাম

সিদ্ধিরগঞ্জে তরুণের লাশ উদ্ধার, পিতার দাবি হত্যাকারী পুত্রবধূ


সিদ্ধিরগঞ্জে তরুণের লাশ উদ্ধার, পিতার দাবি হত্যাকারী পুত্রবধূ

সিদ্ধিরগঞ্জে নিজ ঘর থেকে সুজন মিয়া (১৯) নামে এক তরুণের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এসময় মরদেহের পাশ থেকে বেশ কিছু ঘুমের ওষুধও উদ্ধার করা হয়।

শনিবার ( ৯ফেব্রুয়ারি) সকালে সিদ্ধিরগঞ্জের চৌধুরী বাড়ি মাঝিপাড়া এলাকায় সুজন মিয়ার নিজ বাড়ি থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। সে এই এলাকার আবুল কালামের ছেলে।

এদিকে সুজনকে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় তার স্ত্রী কেয়া আক্তারকে দায়ী করে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ মামলা না নিয়েই তাড়িয়ে দিয়েছে বলে অভিযোগ তুলেছে নিহতের পরিবার। তবে, পরিবারের এ অভিযোগটি সম্পূর্ণ মিথ্যা বলে দাবি করেছে পুলিশ। তাদের দাবি, ‘এটা হত্যা নয়, আত্মহত্যা।’

নিহতের পিতা আবুল কালাম বলেন, সুজন কোনো নেশা করত না। অথচ, মৃত্যুর সময় নেশা গ্রস্থ অবস্থা পাওয়া গেছে। আমাদের বিশ্বাস সুজনের স্ত্রী কেয়ার সাথে অন্য কারো সর্ম্পক রয়েছে। তাই কেয়া ঘুমের ট্যাবলেট খাইয়ে হত্যা করেছে। কিন্তু পুলিশের কাছে অভিযোগ দিতে গিয়েছিলাম, তারা আমাদের উল্টো ‘লাথি মেরে ফেলে দিবো’ বলে তাড়িয়ে দিয়েছে।

তবে বিষয়টিকে অস্বীকার করে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার পরির্দশক (ওসি) মীর শাহীন শাহ পারভেজ বলেন, আমার ধারণা এটা আত্মহত্যা। তবে ময়না তদন্তের রিপোর্ট আসলে বাকিটা বলা যাবে। যদি হত্যা হয়, সে অনুযায়ি ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে পুলিশের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ এনেছে তা সম্পুর্ণ মিথ্যা।

এদিকে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের আরএমও আসাদুজ্জামান বলেন, ময়না তদন্তের রিপোর্ট আসলেই পুরোপুরি বলা যাবে। তবে গলায় দড়ির দাগের মতো দেখা যাচ্ছে। মনে হচ্ছে ফাঁসে তার মৃত্যু, তিনি প্রাথমিক ধারণা করেন।

৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে