NarayanganjToday

শিরোনাম

‘কুতুবপুরের এমপি’ টেনুকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদ করবে ডিবি


‘কুতুবপুরের এমপি’ টেনুকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদ করবে ডিবি

‘কুতুবপুরের এমপি’ চাঁদাবাজির মামলায় গ্রেফতারকৃত শাহ আলম গাজী টেনুকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দিয়েছেন আদালত। রোববার (১০ ফেব্রুয়ারি) দুপুরের দিকে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. কাউসার আলম এই রায় দেন।

এর আগে শুক্রবার শাহ আলম গাজী টেনুকে ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠায় নারায়ণগঞ্জ জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ। রোববার রিমান্ড শুনানি ধার্য রেখে টেনুকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়। ধার্য দিনে নারায়ণগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. কাউসার আলমের আদালতে রিমান্ড শুনানি অনুষ্ঠিত হয়।

শুনানি শেষে আদালত রিমান্ড নামঞ্জুর করেন এবং একদিন জেলগেটে শাহ আলম গাজী টেনুকে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দেওয়া হয়।

নারায়ণগঞ্জ আদালত পুলিশের সহকারি উপ-পরিদর্শক (এএসআই) সোহেল এর সত্যতা নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. কাউসার আলমের আদালতে রিমান্ড শুনানি হয়। আদালত টেনু গাজীকে একদিনের জন্য জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি প্রদান করেন।

প্রসঙ্গত, শাহ আলম গাজী টেনু পাগলা বাজার বহুমুখি সমবায় সমিতির সভাপতি এবং আওয়ামী লীগের নামধারী নেতা হিসেবে স্থানীয়দের কাছে পরিচিত।

বৃহস্পতিবার (৭ ফেব্রুয়ারি) রাতে নারায়ণগঞ্জ জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ পাগলা এলাকায় টেনু গাজীকে তার নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে। তার বিরুদ্ধে ভূমিদস্যুতা, মাদক ব্যবসা, স্থানীয়দের নির্যাতন ও চাঁদাবাজিসহ একাধিক অভিযোগ রয়েছে বলে জানিয়েছিলেন নারায়ণগঞ্জ জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিবি) নূরে আলম।

একইদিন সন্ধ্যায় প্যারাগন নামে একটি মাল্টি পারপাসের সিইও কাজল কুমার রায়, সিইও এর বড় ভাই বিধান কৃষ্ণ রায় এবং সিইও এর মেঝ ভাই বিপ্লব চন্দ্র রায়কে ৫ লাখ টাকা চাঁদার দাবিতে তুলে নিয়ে মারধর করে আহত করে। খবর পেয়ে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ পাগলা বাজার এলাকা থেকে টেনু বাহিনীর হাত থেকে তাদেরকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে।

এ ঘটনায় প্যারাগন মাল্টিপারপাসের চেয়ারম্যান রাজধানীর সবুজবাগ থানার ৬৪/এ মধ্য মাদারটেকের বাসিন্দা মৃত ফজলুল হকের ছেলে শাহজাহান ফতুল্লা মডেল থানায় উপস্থিত হয়ে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশের পরিদর্শক (অপারেশন) মজিবুর রহমান জানান, টেনু গাজীর বিরুদ্ধে একটি চাঁদাবাজির মামলা হয়েছে। প্যারাগন মাল্টিপারপাসের চেয়ারম্যান রাজধানীর সবুজবাগ থানার ৬৪/এ মধ্য মাদারটেকের বাসিন্দা মৃত ফজলুল হকের ছেলে শাহজাহান বাদী হয়ে এ মামলাটি দায়ের করেন।

ভুক্তভোগি বিধান জানান, তার ছোট ভাই প্যারাগন নামে একটি মাল্টিপারপাস চালান। শাহ আলম গাজী টেনু আমাদের কাছ থেকে ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। চাঁদা না দিলে ব্যবস্থা করতে পারবো না বলেও তিনি হুমকি দেন। আমরা তা দিতে অস্বীকৃতি জানালে তিনি তার বাহিনী দিয়ে আমাদেরকে ধরে নিয়ে যান এবং মারধর করেন। এক পর্যায়ে পুলিশ এসে আমাদের উদ্ধার করেন। এ ঘটনায় থানা মামলা দায়ের প্রক্রিয়াধিন।

সম্প্রতি বেশ কিছু গণমাধ্যমে পাগলা বাজার বহুমুখী সমবায় সমিতির সভাপতি শাহ আলম গাজী টেনুর বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হয়। সেসব সংবাদে টেনুর নানা অপকর্ম উঠে আসে। তবে এসব সংবাদকে তিনি মিথ্যা দাবি করে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন। সংবাদ সম্মেলনে তিনি নিজেকে স্থানীয় সাংসদের বন্ধু দাবি করেন এবং নিজেকে কুতুবপুরের এমপি হিসেবে জাহির করেন। তিনি জানিয়েছিলেন, তিনি অত্যন্ত ভদ্র ও ন্যায় পরায়ন একজন মানুষ। তার বিরুদ্ধে কোনো ধরণের অভিযোগ কোথাও নেই।

১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে