NarayanganjToday

শিরোনাম

১৬ মার্চ ভুলতা ফ্লাইওভার উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী


১৬ মার্চ ভুলতা ফ্লাইওভার উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

নারায়নগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলায় ৩৫৩.৩৬ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত ৪ লেন বিশিষ্ট ৩ তলা ভুলতা ফ্লাইওভার একটি মেগা প্রকল্প। আগামী ১৬ মার্চ এশিয়ান হাইওয়ের (বাইপাস) ভুলতা ফ্লাইওভার উড়াল সেতুর গাজীপুর-মদনপুর সড়কের একটি লেন ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এতে করে এখানকার যানজট অনেকাংশে কমে যাবে। কমবে সাধারন মানুষের ভোগান্তিও।

বৃহস্পতিবার সকালে রূপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মমতাজ বেগম ফ্লাইওভার পরিদর্শন করে ভুলতা ফ্লাইওভার উড়াল সেতুর এশিয়ান হাইওয়ের (বাইপাস) গাজীপুর-মদনপুর সড়কের একটি লেন ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উদ্বোধন করবেন বলে নিশ্চিত করেছেন তিনি।      

স্থানীয়রা জানান, এ উপজেলার ভুলতা এলাকায় রয়েছে দক্ষিন এশিয়ার অন্যতম বৃহত্তহম পাইকারি কাপড়ের বাজার ”গাউছিয়া মার্কেট”। এছাড়া ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক ও এশিয়ান হাইওয়ের সংযোগস্থল হওয়ায় এখানে যানজট ছিল নিত্যদিনের সঙ্গী। ভুলতা ফ্লাইওভারটির একপাশ উদ্বোধন শেষে খুলে দেওয়া হলে যানজট নিরসন হবে বলে আশা করছেন স্থানীয়রা। এতে করে সারাদেশের এ উপজেলার সাথে সারাদেশের যাতায়াত ব্যবস্থার গতিশীলতা বাড়বে। ভুলতা ফ্লাইওভার উড়াল সেতু নির্মাণ হওয়ার কারণে এ এলাকায় জমির দামও বেড়ে গেছে কয়েকগুন।

পরিবহন শ্রমিকরা জানান, ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ভুলতা এলাকায় যানজট তাদের নিত্যদিনের সঙ্গী। একঘন্টার পথ যেতে সময় লাগে তিনঘন্টা। ভুলতা ফ্লাইওভারের কাঞ্চন-মদনপুর লেনের উদ্বোধন হলে যানজট অনেকাংশে যাবে বলে তিনি মনে করেন। এতে করে সাধারন মানুষকে ভোগান্তি পোহাতে হবে না।

এ ফ্লাইওভারটি উদ্বোধন হলে বন্দর নগরী চট্টগ্রামসহ দেশের দক্ষিন পূর্বাঞ্চল থেকে ঢাকা হয়ে ময়মনসিংহ বিভাগসহ উত্তর পশ্চিমাঞ্চল সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা তথা জনগনের যাতায়াত ও পন্য পরিবহন দ্রুত, সহজ ও নিরাপদ হবে।

জানা গেছে, ২০১৫ সালের অক্টোবর মাসে ২৪০ কোটি টাকা ব্যায়ে ৪ লেন বিশিষ্ট ভুলতা ফ্লাইওভার উড়াল সেতুটি নির্মাণে চীনা ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি সাক্ষর করেছিলো সরকার। বাংলাদেশ সরকারের অর্থায়নে ফ্লাইওভারটি নির্মাণের কাজ পেয়েছিলো চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না রেলওয়ে ২৪ ব্যুরো গ্রুপ কোং, স্পেক্ট্রা ইঞ্জিনিয়ার্স লিমিটেড ও এএম বিল্ডার্স। চার লেনবিশিষ্ট ফ্লাইওভারের দৈর্ঘ্য হবে ১ দশমিক ২৩৮ কিলোমিটার। মূল ফ্লাইওভারের নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে ১২০ কোটি টাকা, সড়ক নির্মাণে ব্যয় ১১২ কোটি টাকা এবং অন্যান্য ব্যয় ধরা হয় সাড়ে সাত কোটি টাকা। সড়ক যোগাযোগ ও সেতু মন্ত্রনালয়ের আওতাধীন প্রকল্পটির মেয়াদ ছিল জুন পর্যন্ত। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কাজ শেষ করতে না পারায় প্রকল্পটির মেয়াদ আরো ১ বছর বাড়ানো হয়। একই সঙ্গে চলতি বছরের ৮ আগষ্ট ফ্লাইওভারটি নির্মানে আরো ৫৮ কোটি ৫১ লাখ ২০ হাজার ৪৮৬ টাকা বাড়ায় মন্ত্রীসভা কমিটি।

গবেষক, কলামিষ্ট লায়ন মীর আব্দুল আলীম বলেন, ভুলতা ফ্লাইওভারটি রূপগঞ্জবাসীর জন্য একটি স্বপ্নের ফ্লাইওভার। আর এ ফ্লাইওভারটি চালুর অপেক্ষায় রয়েছে সকলে। চালুর পর যানজট মুক্ত থাকবে ভুলতা এলাকা।

পাট ও বস্ত্রী মন্ত্রী ও স্থানীয় সংসদ সদস্য গোলাম দস্তগীর গাজী বলেন, চার লেন বিশিষ্ট ৩ তলা ফ্লাইওভারটির এশিয়ান হাইওয়ে (বাইপাস) কাঞ্চন-মদনপুর সড়কের ফ্লাইওভারটির পুরো সম্পন্ন হয়েছে।

আগামী ১৬ মার্চ শনিবার ফ্লাইওভারটি কাঞ্চন-মদনপুর সড়কের ফ্লাইওভারটি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উদ্বোধন করবেন। এছাড়া ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ফ্লাইওভারটির কাজ প্রায় ৯০ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। অতিদ্রুত  ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ফ্লাইওভারটিও উদ্বোধন করা হবে। আর ওই অংশ টুকু চালু করা হলে এখানে কোন যানজট থাকবে না।

১৪ র্মাচ,২০১৯/এমএ/এনটি

উপরে