NarayanganjToday

শিরোনাম

‘শামীম ওসমানের হস্তক্ষেপে যুগের চিন্তা বন্ধ হয়েছে’


‘শামীম ওসমানের হস্তক্ষেপে যুগের চিন্তা বন্ধ হয়েছে’

নারায়ণগঞ্জ থেকে বহুল প্রচারিত দৈনিক যুগের চিন্তা পত্রিকার ডিক্লারেশন বাতিলের প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাব ও নারায়ণগঞ্জ সাংবাদিক ইউনিয়ন।

মঙ্গলবার (৯ ফেব্রুয়ারী) সকালে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি এড. এাহাবুবুর রহমান মাসুমের সভাপতিত্বে প্রেসক্লাব প্রাঙ্গনে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে নারায়ণগঞ্জের সকল স্তরের সাংবাদিকবৃন্দও উপস্থিত ছিলেন।

নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও সন্ত্রাস নির্মূল ত্বকী মঞ্চের সদস্য সচিব কবি ও সাংবাদিক হালিম আজাদ বলেন, ‘যখনই কোনো পত্রিকা গণমানুষের পক্ষে কথা বলে, সন্ত্রাসী গডফাদারের বিরুদ্ধে বলে, তখনই তার কন্ঠরোধ করতে বিভিন্ন ষড়যন্ত্র শুরু হয়। দৈনিক যুগের চিন্তা গমানুষের কথা বলে। তাই আমি মনে করি যুগের চিন্তাকে ইচ্ছাকৃতভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। ধিক্কার জানাচ্ছি তাদের প্রতি যারা এই পত্রিকাটির ডিক্লারেশন বাতিলের পিছনে কলকাঠি নাড়ছে।’

এসময়, যতদিন পর্যন্ত পত্রিকাটির ঘোষণাপত্র ফিরে না পায় ততদিন পর্যন্ত সাংবাদিকদের আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানান হালিম আজাদ।

সভাপতির বক্তব্যে  নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি অ্যাড. মাহবুবুর রহমান মাসুম অবিলম্বে যুগের চিন্তা খুলে দেয়া দাবি জানিয়ে বলেন, “নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ওসমান প্রকাশ্য জনসভায় যুগের চিন্তাকে ‘দুশ্চিন্তা’ বলে অবিহিত করে এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার ঘোষণা দেন। এরপরে যুগের চিন্তা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় প্রতিয়মান হয় যে এই এমপি’র হস্তক্ষেপেই যুগের চিন্তা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।”

তিনি বলেন, “মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এবং তথ্যমন্ত্রী না জানলেও একজন ব্যক্তি জানেন তথ্য সচিব আব্দুল মালেক। গুঞ্জন রয়েছে উনি এমপি সাহেবের পকেটের লোক। তাকে দিয়ে ঢাকার ডিসির কাছ থেকে, মেজিস্ট্রেটের কাছ থেকে মুদ্রনের পাব্লিকেশন বাতিল করা হয়েছে। পত্রিকা কর্তৃপক্ষকে কোনো রকম নোটিশ না দিয়ে, কারন না দর্শিয়ে তথ্য মন্ত্রনালয় থেকে জেলা মেজিস্ট্রেটের নিকট চিঠি পাঠানো হয়েছে ব্যাবস্থা নেয়ার জন্য।”

একজন নাগরিক হিসেবে কেন আমার বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা নেয়া হবে তা জানার অধিকার রয়েছে উল্লেখ করে প্রেসক্লাব সভাপতি বলেন, “বাংলাদেশের সংবিধানকে অমান্য করে একতরফাভাবে ওই গডফাদারদের প্রতিনিধি হিসেবে যুগের চিন্তার ডিক্লারেশন বাতিল করেছে প্রশাসন। যা আদৌ কাম্য নয়। আমরা সাংবাদিকরা বিভিন্ন গণমাধ্যমে কাজ করি। আমাদের কাজ মানুষের কাছে খবর পৌঁছে দেয়া। যুগের চিন্তা সেই কাজটিই করে।  আমরা যুগের চিন্তাকে ফেরত চাই।”

মাসুম বলেন, “আমি আজ আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষনা দিলাম, নারায়ণগঞ্জের কোনো পত্রিকা নারায়ণগঞ্জের প্রেস থেকে ছাপা হয়না। নারায়ণগঞ্জের সব পত্রিকা বন্ধ করে দেন। নারায়ণগঞ্জ শহরে কোনো পত্রিকার দরকার নাই। নারায়ণগঞ্জ শহরে সন্ত্রাসী গডফাদারের দরকার আছে। চিহ্নিত গডফাদারের অধিপত্য দরকার আছে। এখানে সংবাদপত্রের দরকার নাই বলেই আজকে যুগের চিন্তার ওপর আঘাত এসেছে।”

সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন,  “আমরা যারা সাংবাদিতকা করি তাদের প্রতি আমার আহ্বান আমরা সত্য লিখবো, সত্য লিখতে পিছপা হবো না। যুগের চিন্তাকে কারো চৌদ্দ পুরুষ থামাতে পারবে না। আগামী সাত দিনের মধ্যে আবারো যুগের চিন্তা চালু হবে।”

এর আগে, প্রতিবাদ সভায় উপস্থিত সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে দৈনিক যুগের চিন্তা পত্রিকার ডিক্লারেশন বাতিল প্রত্যাহার করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট দাবি জানিয়ে বলেন, ‘দৈনিক যুগের চিন্তা নারায়ণগঞ্জবাসীর কথা বলে। এরকম জনপ্রিয় ও বহুল প্রচারিত সংবাদপত্রের ডিক্লারেশন বাতিল হটকারী সিদ্ধান্তের সামিল। আমরা মনে করি, এই পত্রিকার ডিক্লারেশন বাতিলের ফলে সাংবাদিকতার নীতিমালা ক্ষুন্ন হয়েছে। আমরা এর তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করছি।’

৯ এপ্রিলশ, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে