NarayanganjToday

শিরোনাম

সাংসদ শামীম ওসমান নাকি এসপি হারুন, কে কাবু হলেন?


সাংসদ শামীম ওসমান নাকি এসপি হারুন, কে কাবু হলেন?

নারায়ণগঞ্জের সর্বত্রই আলোচ্য বিষয় ছিলো শামীম ওসমান ও এসপি হারুন অর রশিদের ‘লড়াই’। কিন্তু সে আলোচনার লাটাইয়ের সূতো ছিড়ে এখন সর্বাধিক আলোচ্য বিষয় হচ্ছে জেলার প্রভাবশালী এই দুই ব্যক্তির এক টেবিলে বসে বর্ষবরণের খাবার খাওয়ার বিষয়টি। তাহলে কী তাদের মধ্যে এ কদিন  যে বৈরিতা শুরু হয়েছিলো তার বরফ গলতে শুরু হয়েছে?

রোববার (১৪ এপ্রিল) নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদ তার বাসভবনে বর্ষবরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন। এখানে অন্যান্যদের মধ্যে সাংসদ শামীম ওসমানও উপস্থিত হন। এক টেবিলে বসে তিনি এসপির সাথে খাবারও খান। শুধু তাই নয়, খোদ এসপি নিজ হাতে সাংসদকে আপ্যায়নও করেন।

এদিকে খুব সম্প্রতি ওসমান পরিবারের বিরুদ্ধে জেলা পুলিশ থেকে ১৬টি সুনির্দিষ্ট অভিযোগ তুলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়েছিলো জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে।

সেই চিঠিতে বলা আছে, অতীতে নারায়ণগঞ্জে ওসমান পরিবারের অবাধ্য হয়ে প্রশাসনের কেউ কিছু করেছেন, এমন দৃষ্টান্ত নেই। এমনকি বিএনপি ও জাতীয় পার্টির আমলেও ‘ওসমান সা¤্রাজ্য’ অক্ষত ছিল। পুলিশ প্রশাসন বলেছে, নারায়ণগঞ্জের অর্থনৈতিক ও বাণিজ্যিক সম্ভাবনার কথা ভেবে চাঁদাবাজি ও সন্ত্রাস বন্ধে তারা সর্বাত্মক চেষ্টা চালাবে। সন্ত্রাসের জনপদকে শান্তির জনপদ বানাবে। কিন্তু তাদের ভয়, এই অভিযান যৌক্তিক পরিণতি পাবে কি না। ইতিমধ্যে ওসমান পরিবার এর বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে।

সম্প্রতি পুলিশ প্রশাসন পুরো পরিস্থিতি জানিয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে যে চিঠি দিয়েছে, যাতে কোথায়, কোন তারিখে কোন অভিযানে কারা ধরা পড়েছেন, কারা ক্ষুব্ধ হয়েছেন, তার বিবরণ আছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো ওই চিঠিতে আরও বলা হয়, নারায়ণগঞ্জের সর্বস্তরের মানুষ মাদক ও সন্ত্রাসবিরোধী অভিযান সমর্থন করলেও সাংসদ শামীম ওসমান প্রশাসনের ওপর নানাভাবে চাপ সৃষ্টি করছেন।

সচেতন মহল বলছেন, এবারই প্রথম ওসমান পরিবারের বিরুদ্ধে পুলিশ প্রশাসন এমন অভিযোগ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করেছেন। আর এখানে সরাসরি অভিযুক্ত করা ওসমান পরিবারের সন্তান প্রভাবশালী সাংসদ শামীম ওসমান এসপির আয়োজনে আয়োজিত বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে (!) যা এখন জেলাব্যাপী নতুন চমক বলেই মনে করছেন অনেকে।

কেননা, ৬ এপ্রিল দলীয় ব্যানারে আয়োজিত সমাবেশে শামীম ওসমান এসপিকে ইঙ্গিত করে বলেছিলেন, ‘আগামী ১০-১২ দিনের মধ্যেই টের পাইবেন।...শাহ নিজামের বিরুদ্ধে জিডি করবেন, টিটুর বিরুদ্ধে মদ সাপ্লাইয়ের মামলা দিয়েছেন বলে মনে করছেন আমরা ভয় পেয়ে গেছি। ভয় পাবে কে? যে খারাপ লোক সে। এগুলো করে আমাকে কাবু করতে পারবেন না।’

এদিকে সাংসদের বেঁধে দেওয়া ১০/১২ দিন পূরণ হতে আরও বাকি ৪দিন। আর এই চারদিন আগেই এসপির বাসভবনে সাংসদ শামীম ওসমান উপস্থিত হয়ে যে চমক দেখিয়েছেন তাতে প্রশ্ন উঠেছে, সাংসদের বেঁধে দেওয়া সময়ের আগেই কী পুলিশ সুপার নিজেই কাবু হয়ে গেলেন নাকি এ কেবলই উৎসবের জন্য অতিথী আপ্যায়ন?

১৪ এপ্রিল, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে