NarayanganjToday

শিরোনাম

আলোচিত প্রবীর হত্যা মামলায় ২৮ জনের সাক্ষ্য গ্রহন সম্পন্ন


আলোচিত প্রবীর হত্যা মামলায় ২৮ জনের সাক্ষ্য গ্রহন সম্পন্ন

আলোচিত স্বর্ণ ব্যবসায়ী প্রবীর হত্যা মামলায় ৩০ জন সাক্ষীর মধ্যে ২৮ জনের সাক্ষ্য গ্রহন সম্পন্ন হয়েছে। 

রোববার দুপুরে নারায়নগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ মোঃ আনিসুর রহমানের আদালতে প্রবীর হত্যা মামলায় স্বাক্ষ্য দিয়েছেন সদর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক আজাদ। এ নিয়ে ২৮ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহন করা হলো।

জানাযায়, নারায়ণগঞ্জের চাঞ্চল্যকর স্বর্ন ব্যবসায়ী প্রবীর ঘোষ হত্যা মামলাটি দ্রুততার সাথে এগিয়ে নেয়ার জন্য প্রতি রোববার সাক্ষীদের সাক্ষ্য গ্রহন করা হচ্ছে। সেই সাথে জেলা ও দায়রা জজ মোঃ আনিসুর রহমান মামলাটি দ্রুত নিষ্পত্তি করার চেষ্ঠা করছেন। তারই প্রতিফলন লক্ষ্য করা যাচ্ছে মামলাটির সাক্ষ্য গ্রহন অতি দ্রুত সমাপ্তির মধ্য দিয়ে।

এ বিষয় পিপি অ্যাড. ওয়াজেদ আলী খোকন বলেন, আশা করা হচ্ছে মামলাটি দ্রুত নিষ্পত্তি করার সম্ভব হবে। কারন মামলাটির স্বাক্ষ্য গ্রহন প্রায় শেষের দিকে।

এদিকে মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবী হিসেবে আরও উপস্থিত ছিলেন, রাষ্ট্র সহয়াক এড. মৃনাল কান্তি দত্ত বাপ্পি, এড. জয়ন্ত কুমার ঘোষ, অ্যাড. মিনহাজ উল ইসলাম ভূঁইয়া, অ্যাড. জনি চন্দ্র গোপ প্রমূখ।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ১৮ জুন রাতে একটি ফোন কল পেয়ে চাষাড়ার বালুর মাঠের বাসা থেকে বের হয়েছিলেন কালির বাজার এলাকার ভোলানাথ জুয়ের্লাসের মালিক প্রবীর ঘোষ। সেদিনের পর থেকে তার কোনো হদিস পাওয়া যায়নি। দীর্ঘ ২১ দিন নিখোঁজ থাকার পর ০৯ জুলাই রাত সাড়ে ১১টার দিকে আমলা পাড়া কে বি সাহা রোডের ঠান্ডা মিয়ার বাড়ির সেফটি ট্যাঙ্কি থেকে পৃথক তিনটি ব্যাগে ভর্তি ৫খন্ড গলিত প্রবীল ঘোষের মরদেহ উদ্ধার করে জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ।

ডিবি পুলিশের হাতে আটক প্রবীর ঘোষের ঘনিষ্ঠ বন্ধু জুয়েলারী ব্যবসায়ী পিন্টু দেবনাথের স্বীকারোক্তিতে তাঁকে নিয়েই ঠান্ডা মিয়ার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে প্রবীর ঘোষের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছিলো। ঘাতক পিন্টু দেবনাথ এই বাড়িটির দ্বিতীয় তলাতেই ভাড়া থাকতেন।
১২ মে, ২০১৯/এম এ/এন টি


 

উপরে