NarayanganjToday

শিরোনাম

না.গঞ্জ পুলিশের বিশেষ অভিযানে ৪ ডাকাতসহ গ্রেফতার ১৪


না.গঞ্জ পুলিশের বিশেষ অভিযানে ৪ ডাকাতসহ গ্রেফতার ১৪

নির্বিঘ্ন ঈদ, রোজা এবং শহরবাসী নিরাপত্তায় চালানো বিশেষ অভিযানে এবার নারীসহ ১০ ছিনতাইকারী ও ৪ ডাকাতকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আটকদের কাছ থেকে লুণ্ঠিত মালামালও উদ্ধার করেছে পুলিশ।

নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানা ও জেলা গোয়েন্দা পুলিশ পৃথকভাবে অভিযান চালিয়ে তাদেরকে আটক করে। ১৪ মে রাত ৮ থেকে শুরু করে বুধবার (১৫ মে) সকাল ৯ টা পর্যন্ত এই বিশেষ অভিযান চলে।

আটক চার ডাকাত হলো নরসিংদী জেলার মাধবী এলাকার আ. মতিনের ছেলে ইব্রাহিম (৩০), ব্রাহ্মনবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর জগন্নাথপুরের মোহাম্মদ আলমের ছেলে সুমন (২৪), নরসিংদী শিবপুর হাজী বাগানের আকবর আলীর ছেলে লাল মিয়া (৫২) এবং নেত্রোকোনার বারহাট্টা যোগাসালনের সাব্বির আলীর ছেলে সাগর আলী (৩৩)।

নারায়ণগঞ্জ জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ মঙ্গলবার রাতে তাদেরকে গাজীপুরের টঙ্গীর বৌ-বাজার ও টঙ্গী রেললাইন বস্তি এলাকা থেকে আটক করে। এসময় তাদের কাছ থেকে লুট করে নেওয়া মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়েছে।

পুলিশ সুপার কার্যালয় থেকে প্রেরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, আটককৃতদের বিরুদ্ধে রূপগঞ্জ থানায় চলতি বছরের পহেলা এপ্রিল একটি ডাকাতি মামলা দায়ের করা হয়। ওই মামলায়র সূত্র ধরে ডিবির পরিদর্শক গিয়াসউদ্দিনের নেতৃত্বে এই অভিযান চালানো হয়। আটকদের দায়েরকৃত মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে বুধবার ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

এছাড়াও শহরে অভিযান চালিয়ে নারী-পুরুষসহ ১০ ছিনতাইকারীকে আটক করা হয়েছে বলে পুলিশের প্রেরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে দাবি করা হয়েছে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদের নির্দেশে রমজান ও আসন্ন ঈদ উপলক্ষে নারায়ণগঞ্জবাসী যেন নির্বিঘেœ ও শান্তিতে চলাফেরা করতে পারে এবং নারায়ণগঞ্জ শহরকে আরও নিরাপদ শহর হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে নিয়মিত অভিযানের অংশ হিসেব ডিবি পুলিশ সহ জেলা পুলিশের অন্যান্য সকল থানা কর্তৃক অভিযান পরিচালিত হচ্ছে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, বিশেষ অভিযান ছাড়াও যানজট নিরসনের লক্ষ্যে সড়ক ও মহাসড়কে জনসাধারণের স্বাভাবিক চলাচল নিশ্চিতকল্পে জেলা বিশেষ শাখা, নারায়ণগঞ্জ কর্তৃক বিশেষ প্রোগ্রাম হাতে নেওয়া হয়েছে। সমস্ত নারায়ণগঞ্জ জেলার সকল সড়ক ও মহাসড়কগুলোকে চারটি সেক্টরে ভাগ করা হয়েছে। প্রতিটি সেক্টরকে ২ টি করে সাব সেক্টরে ভাগ করা হয়েছে। এ প্রোগ্রামে জেলা পুলিশ ও ট্রাফিক বিভাগ সম্বন্বয় করে কাজ করছে।

১৫ মে, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে