NarayanganjToday

শিরোনাম

ঈদে সড়ক-মহাসড়কের শৃঙ্খলা ফেরাতে এসপি হারুনের বিশেষ প্রোগ্রাম


ঈদে সড়ক-মহাসড়কের শৃঙ্খলা ফেরাতে এসপি হারুনের বিশেষ প্রোগ্রাম

নারায়ণগঞ্জের উপর দিয়ে ঢাকা-সিলেট এবং ঢাকা-চট্টগ্রাম দুটি মহাসড়। পাশাপাশি এই জেলার উপর দিয়ই আরও বেশ কয়েকটি জেলায় যাতায়াত করে মানুষ। যা হিসেব কষলে প্রতিদিনই কয়েক লাখ লোকের যাতায়ত হয় স্বাভাবিক ভাবে। আর উৎসব হলে তো কথাই নেই।

তবে, প্রতি ঈদেই থাকে ব্যাপক ঝক্কিঝামেলা আর তীব্র যানজটের বাড়তি ভোগান্তি। এসব মাথায় নিয়ে কয়েক ঘণ্টার পথ একদিন বা দেড়দিনে যেতে হয় নাড়ির টানে বাড়ি ফেরা মানুষগুলোকে। এবার মানুষের সেই ভোগান্তি লাঘবে বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদ।

সাধারণ মানুষ যাতে নির্বিঘেœ পরিবারের কাছে পৌঁছাতে পারেন এবং এর জন্য যতটা সম্ভব যানজট নিরসন করা যায় সে লক্ষ্যে জেলা পুলিশ ও ট্রাফিক বিভাগ সম্বন্বয়ে বিশেষ প্রোগ্রাম হাতে নিয়েছেন পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ। এই প্রোগ্রামের আওতায় শুধু মহাসড়ক তা নয়, আভন্তরীণ রুটের মানুষকেও সুবিধা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার ডিআইও-টু সাজ্জাদ রোমন।

বুধবার (১৫ মে) পুলিশ সুপার কার্যালয় সূত্রে এক বিজ্ঞপ্তিতে জানা গেছে, রমজান ও আসন্ন ঈদ উপলক্ষে নারায়ণগঞ্জবাসী যেন নির্বিঘেœ ও শান্তিতে চলাফেরা করতে পারে এবং নারায়ণগঞ্জ শহরকে আরও নিরাপদ শহর হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে নিয়মিত অভিযানের পাশাপাশি সমস্ত জেলার সকল সড়ক ও মহাসড়কগুলোকে চারটি সেক্টরে ভাগ করা হয়েছে। প্রতিটি সেক্টরকে ২ টি করে সাবসেক্টরে ভাগ করা হয়েছে। এ প্রোগ্রামে জেলা পুলিশ ও ট্রাফিক বিভাগ সম্বন্বয় করে কাজ করবে।

ডিআইও-টু সাজ্জাদ রোমন বলেন, রমজান ও আসন্ন ঈদ উপলক্ষে জেলা পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদের নির্দেশনায় মহাসড়কে জনসাধারণের স্বাভাবিক চলাচল নিশ্চিতকল্পে যানজট নিরসনের লক্ষ্যে জেলা পুলিশ ও ট্রাফিক বিভাগ সম্বন্বয়ে বিশেষ প্রোগ্রাম হাতে নেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, এই প্রোগ্রামে চাষাড়া থেকে সাইনবোর্ড পর্যন্ত সকাল ৮টা থেকে রাত ৮ টা পর্যন্ত পুলিশের একজন ইন্সপেক্টর দায়িত্ব পালন করবেন। ঠিক তেমনি রাত ৮টা থেকে সকাল ৮টা পর্যন্ত ট্রাফিক পুলিশের একজন টিআই দায়িত্বে থাকবে। এভাবেই নারায়ণগঞ্জ জেলার আওতাধীন প্রতিটি সড়ক ও মহাসড়কে জেলা পুলিশ ও ট্রাফিক বিভাগ সম্বন্বয় করে জন-নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে কাজ করা হবে।

পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদের বরাত দিয়ে সাজ্জাদ রোমন আরও বলেন, ইতোমধ্যে পুলিশ সুপারের নির্দেশে সাধারণ মানুষের শান্তি নিশ্চিতকরণে পুলিশ বিশেষ অভিযান শুরু করেছে। এসব অভিযানে ইতোমধ্যে শহর থেকে বেশ কয়েকজন ছিনতাইকারী, প্রতারক আটকও করা হয়েছে। তিনি (পুলিশ সুপার) ঈদ উৎসব পালনে ঘরমুখো মানুষের নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে ইতোমধ্যে সকলকে নির্দেশনা দিয়েছেন সড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে। সে লক্ষ্যে কাজ শুরু হয়েছে। আশা করছি অতীতের যে কোনো সময় থেকে এবার ঈদে ঘরমুখো মানুষের ভোগান্তি বিশেষ করে যানজটের ভোগান্তি অনেকটাই কমিয়ে আনতে পারবো।

১৫ মে, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে