NarayanganjToday

শিরোনাম

নগরীতে মাউরা হোটেল সহ ৫ দোকানীকে জরিমানা


নগরীতে মাউরা হোটেল সহ ৫ দোকানীকে জরিমানা

নগরীর কালিবাজারসহ এর আশে পাশের এলকায় ধার্যকৃত মূল্যের বেশি মূল্যে পণ্য, মূল্য তালিকা, ওজন যন্ত্রের বিএসটিআই সনদ, ট্রেড লাইসেন্স, খাবার বিক্রির অনুমোদন লাইসেন্স সহ কর্মচারীদের স্বাস্থ্য সনদ না থাকায় ৫ প্রতিষ্ঠানকে ২৩ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত।

রবিবার (১৮ মে) দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ভূমি কমিশনার (সদর) হাসান বিন মুহাম্মাদ আলীর নেতৃত্বে এ ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালিত হয়।

এ সময় বাজার মনিটরিংয়ের অংশ হিসেবে নগরীর কালীবাজার ও চারারাগোপ এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান পরিচালিত হয়।

অভিযান পরিচালনার সময় ধার্যকৃত মূল্যের বেশি মূল্যে পণ্য বিক্রি করায় ভোক্তা অধিকার আইনে ‘খাজা বাবা স্টোর’কে ৫ হাজার টাকা, মূল্য তালিকা না থাকায় এক তরকারি দোকানীকে ৩ হাজার এবং ওজন যন্ত্রের বিএসটিআই সনদ না থাকায় ‘মেসার্স মহব্বত আলী’ নামক এক ফলের আড়ৎদারকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

এ ছাড়া মাউরা হোটেল(বর্তমান রয়েল রেস্টুরেন্ট) ও ভান্ডারী হেটেলে নামক ২টি খাবার রেস্টুরেন্টে অভিযান চালানো হয়।

ভান্ডারি হোটেলে অভিযানকালে ট্রেড লাইসেন্স, খাবার বিক্রির অনুমোদন লাইসেন্স এবং কর্মচারীদের স্বাস্থ্য সনদ দেখাতে না পারায় ১০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। 
অপরদিকে  নোংরা পরিবেশে রান্না করার অপরাধে মাউরা হোটেল (বর্তমান রয়েল রেস্টুরেন্ট) কে  ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

এছাড়াও রমজানের নিত্যপণ্যের বাজার মূল্য সহনীয়র পাশাপাশি হাইকোর্ট কর্তৃক নিষিদ্ধ ৫২ পণ্য বাজারে এখনও রয়েছে কিনা অভিযানে সেদিকটা পূর্ণ লক্ষ্য রাখা হয়েছে। অসাধু মজুতদার এবং কোন খাদ্য ভেজালকারীকে ছাড় দেওয়া হবে না। এই রমজান মাসে ভ্রাম্যমাণ আদালতের এমন অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।
১৯ মে,২০১৯/এমএ/এনটি
 

উপরে