NarayanganjToday

শিরোনাম

‘একটি গোষ্ঠীর স্বার্থ রক্ষায় শীতলের সাথে মিলিয়ে বিআরটিসির ভাড়া’


‘একটি গোষ্ঠীর স্বার্থ রক্ষায় শীতলের সাথে মিলিয়ে বিআরটিসির ভাড়া’

যাত্রী সাধারণের সুবিধার্থে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটে বিআরটিসি এসি বাসের ভাড়া ৪৫ টাকা নির্ধারণ সহ অতিদ্রুত নন এসি বাস চালু করার দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছে নারায়ণগঞ্জের যাত্রী সংরক্ষণ অধিকার ফোরাম।

বৃহস্পতিবার (২৩ এপ্রিল) বেলা ১১টায় নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের হানিফ খান মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে এসব কথা বলেন সংগঠনটির আহবায়ক রফিউর রাব্বী।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন, নাগরিক কমিটির সভাপতি এবি সিদ্দিক, জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি হাফিজুর রহমান, নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক ধীমান সাহা জুয়েল, নাগরিক কমিটির সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহমান, খেলাঘর আসরের সভাপতি রথীন চক্রবর্তী, জেলা ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সাধারণ সম্পাদক বিমল কান্তি দাস প্রমুখ।
 
সংবাদ সম্মেলনে রফিউর রাব্বি বলেন, গণপরিবহন নিয়ে নারায়ণগঞ্জে সাধারণ মানুষের দুর্ভোগ দীর্ঘদিনের।  সব সময়, সব সরকারের আমলেই এ দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে।  এখানে বেসরকারি বাস থেকে চাঁদা তোলার জন্য সব সময় সরকার সমর্থিত একটি গোষ্ঠী তৎপর থাকে।  তারা সিন্ডিকেট তৈরি করে সাধারণ জনগণের পাশাপাশি বাস মালিকদেরও জিম্মি করে রাখে। সরকার ও সরকারের সেবামূলক পরিবহন সংস্থা বিআরটিসি এ বিষয়ে নিরব ভূমিকার মাধ্যমে এ গোষ্ঠীকে বিশেষ সহায়তা করে আসছে।
 
তিনি আরো বলেন, নারায়ণগঞ্জ রাজধানীর ঢাকার পাশের জেলা ও অর্থনৈতিক অঞ্চল হওয়া সত্ত্বেও এখানে বিআরটিসি অনিয়মিত। জনদুর্ভোগ লাঘবে বিআরটিসির ভূমিকা সবসময়ই ছিল প্রশ্নবিদ্ধ।  ২০১১ সালে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটে বাস ভাড়া ২২ থেকে ৩১ টাকায় বৃদ্ধি করা হলে যাত্রী সংরক্ষণ অধিকার ফোরামের আন্দোলনের মুখে দুই দফায় ভাড়া কমিয়ে ২৭ টাকা করা হয়েছিল। তখন আমাদের দাবির প্রেক্ষিতে এসি ও নন-এসি মিলিয়ে প্রায় শতাধিক বাস চালু করা হয়। তখন এই রুটে বেসরকারি কোন এসি বাস ছিল না। তখন বেসরকারি নন-এসি বাস ২৭ টাকা ভাড়া নিলেও বিআরটিসি ২৫ টাকা নির্ধারণ করে। কিন্তু স্থানীয় সিন্ডিকেটকে অবৈধ সুবিধা দিতেই বিআরটিসি এক সপ্তাহের মাথায় এই রুটে নন-এসি বাস তুলে নেয়। দুই বছর আগে বেসরকারি এসি বাস ‘শীতল’ চালু হলে বিআরটিসি তাদের এসি বাসগুলোও তুলে নেয়। তখন ‘শীতল’ এর ভাড়া ছিল ৫৫ টাকা আর বিআরটিসির এসি বাসের ভাড়া ছিল ৪৫ টাকা। বিআরটিসি বন্ধ হয়ে গেলে সাধারণ মানুষ জিম্মি হয়ে পড়ে।

রফিউর রাব্বি বলেন, বিআরটিসি আবারও এই রুটে এসি বাস চালু করে তাতে তাদের সাধুবাদ জানাই। কিন্তু শীতল বাসের সাথে মিলিয়ে ভাড়া ৫৫ টাকা করার তীব্র প্রতিবাদ জানাই। এছাড়া এই রুটে নন-এসি বাস চালু করার দাবিও জানাই।
 
বিআরটিসি কর্তৃপক্ষকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, বিআরটিসি একটি সেবামূলক সংস্থা। নন-এসি ৩০ ও এসি বাসের ভাড়া ৪৫ রেখেও তারা লাভবান হতে পারে। আমরা তাদের অতিসত্ত্বর নারায়ণগঞ্জবাসীর এই ন্যায্য দাবি মেনে নেয়ার আহ্বান জানাই।

উলে¬খ্য, দুই বছর বন্ধ থাকার পর গত বুধবার (২২ মে) ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটে বিআরটিসির এসি বাস চালু করা হয়। তবে ভাড়া নির্ধারণ করা হয় ৫৫ টাকা যা পূর্বে ছিল ৪৫ টাকা।

উপরে