NarayanganjToday

শিরোনাম

বিআরটিসি বাস কাউন্টার প্রসঙ্গে এসপি হারুনের কঠোর হুঁশিয়ারী


বিআরটিসি বাস কাউন্টার প্রসঙ্গে এসপি হারুনের কঠোর হুঁশিয়ারী

বিআরটিসি বাসের কাউন্টার বসতে না দেওয়ার ব্যাপারে এবার কঠোর হুঁশিয়ারী উচ্চারণ করেছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদ। যারা কাউন্টার বসাতে বাধা দিচ্ছেন তাদেরকে তিনি দুস্কৃতিকারী হিসেবে মন্তব্য করেন।

শনিবার (২৫ মে) বিকেলে শহরের পশ্চিম দেওভোগ এলাকার বিদ্যানিকেতন হাই স্কুলের ৫ম তলা ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধনকালে এ হুঁশিয়ারী দেন তিনি।

হারুন অর রশীদ কাউন্টার বসাতে বাধাপ্রদানকারীদের দুস্কৃতিকারী আখ্যা দিয়ে বলেন, ‘আমরা খবর পেয়েছি কিছু দুষ্কৃতিকারী ব্যক্তি বিআরটিসি বাস সার্ভিসের কাউন্টারগুলো বসতে দিচ্ছে না। আজ থেকেই এই কাউন্টার বসবে। নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ এ ব্যাপারে সহযোগিতা করবে।’

এসময় উপস্থিত ছিলেন স্কুল পরিচালনা পরিষদের সভাপতি কাশেম হুমায়ুন, এবং বিদ্যানিকেতন হাই স্কুলের শিক্ষকবৃন্দ ও শিক্ষার্থীবৃন্দ। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পুলিশ সুপার পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত)  মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিবি) সুবাস চন্দ্র সাহাসহ নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশের কর্মকর্তাবৃন্দ।

প্রসঙ্গত, দুই বছর বন্ধ থাকার পর ২২ মে বাংলাদেশ সরকারের সেতু ও যোগাযোগ মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের পুনরায় ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটে বিআরটিসি এসি বাসের উদ্বোধন করেন। এই রুটের যাত্রী সাধারণের জন্য ১৫ টি বাস ইতোমধ্যে চলাচল শুরু করে। তবে, শুক্রবার থেকে এই বাস সার্ভিসটির কাউন্টার বসাতে বাধা দিচ্ছে বাস মিনিবাস মালিক সমিতির লোকজন। শনিবারও চেষ্টা করে বাস কাউন্টার বসাতে পারেনি বিআরটিসি কর্তৃপক্ষ।

পুনরায় চালু হওয়া বিআরটিসির ভাড়া ম-লপাড়া থেকে ৫৫ টাকা এবং চাষাড়া থেকে ৫০ টাকা। তবে, চাষাড়া থেকে ঢাকায় চলাচল করা শামীম ওসমানের মালিকানাধিন এসি বাস সার্ভিস শীতলের ভাড়া ৫৫ টাকা। ফলে বিআরটিসির ভাড়া ৫০ টাকা করায় শীতলে এর প্রভাব পড়ছে। ফলশ্রুতিতে মূল বাধাটা সেখান থেকেই আসছে বলে মনে করছেন সচেতন মহল।

এর আগে নারায়ণগঞ্জ বিআরটিসি ডিপো থেকে ৪৫টি বিআরটিসি এসি বাস সার্ভিস ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটে চলাচল করতো। যা উদ্বোধন করেছিলেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের প্রয়াত সাংসদ নাসিম ওসমান। কিন্তু শামীম ওসমানের মালিকানাধীন শীতল এসি বাস সার্ভিসের ২৬টি বাস এই রুটে উদ্বোধনের সপ্তাহের ভেতরই এই ৪৫টি বিআরটিসি বাস উধাও হয়ে গিয়েছিলো বলে অনেকেই দাবি করেন। সার্ভিসটি বন্ধ হওয়ার নেপথ্যে অনেকেই শামীম ওসমানের মালিকানাধীন শীতল এসি বাস সার্ভিসকেই দায়ী করেছিলেন।

২৫ মে, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে