NarayanganjToday

শিরোনাম

ফতুল্লায় বান্ধবীর বাসায় এসে গণধর্ষণের শিকার তরুণী, আটক ৩


ফতুল্লায় বান্ধবীর বাসায় এসে গণধর্ষণের শিকার তরুণী, আটক ৩

ঈদের ছুটিতে বন্ধুকে সাথে নিয়ে ফতুল্লায় মৌসুমী নামের এক বান্ধবীর বাসায় বেড়াতে এসে গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক অষ্টাদশী তরুণী। পুলিশ এ ঘটনায় বান্ধবীসহ তিন অভিযুক্তকে আটক করেছে।

৮ জুন রাত সাড়ে ৮ টায় ফতুল্লার ধর্মগঞ্জের ছলিম উদ্দিনের ইট ভাটায় ওই গণধর্ষণের ঘটনা ঘটে। রোববার (৯ জুন) সকালে বান্ধবী মৌসুমী আক্তারের ধর্মগঞ্জের আরাফাত নগরের বাসা থেকে ধর্ষণ আক্রান্ত তরুণীকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ।

পুলিশ জানায়,  ১৮ বছর বয়সের এক তরুনী শামীম নামে তার এক বন্ধুকে নিয়ে ঈদের পরদিন শুক্রবার দুপুর ১২ টায় সিদ্ধিরগঞ্জের কদমতলী এলাকা থেকে ফতুল্লার আরাফাত নগর এলাকায় বান্ধবী মৌসুমীর বাড়িতে বেড়াতে আসে। এসময় মৌসুমী তাদের বাসায় আটক করে ওই তরুনীর মায়ের মোবাইল ফোন করে ৪০ হাজার টাকা মুক্তিপন দাবি করে। এতে গার্মেন্টকর্মীর মা সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি জিডি করেন।

ওই জিডির সূত্রধরে প্রযুক্তির মাধ্যমে বান্ধবীর অবস্থান শনাক্ত করে পুলিশ। এরপর ফতুল্লা পুলিশের সহযোগীতায় মৌসুমীকে ফোন করে জানানো হয় আপনার নামে পার্সেল আসছে কুরিয়ার সার্ভিসে এসে নিয়ে যান। তখন মৌসুমী বলেন আমার বাসায় এসে দিয়ে যান। এসময় পুলিশ গিয়ে আরাফাতনগর এলাকার বাসা থেকে মৌসুমীকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে তার ঘর থেকে গার্মেন্টকর্মীকে আহত অবস্থায় বের করে দেয়। তখন মৌসুমীর ঘর থেকে দুই ধর্ষককে আটক করে পুলিশ।

এসময় ধর্ষকরা পুলিশকে জানায়, মৌসুমীর ডাকে ধর্মগঞ্জ এলাকার সলিমুল্লাহর ইট ভাটায় তরুনীকে নিয়ে একটি ঝুপড়ি ঘরে তারা ৮/৯ জন ধর্ষন করে। এতে অসুস্থ হয়ে পড়লে মৌসুমী ইটভাটা থেকে তরুনীকে তার বাসায় এনে রাখে।

এর সত্যতা নিশ্চিত কওে ফতুল্লা মডেল থানার ওসি আসলাম হোসেন জানান, তদন্তের স্বার্থে ধর্ষকদের নাম প্রকাশ করা যাচ্ছেনা। তবে বান্ধবী মৌসুমী সহ ৩ জনকে আটক করা হয়েছে। অপর আসামীদেরও গ্রেফতারে অভিযান চলছে। এঘটনায় মামলা হয়েছে। তরুনীকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

৯ জুন, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে