NarayanganjToday

শিরোনাম

প্রি-পেইড মিটার বন্ধের দাবিতে বন্দরে পল্লী বিদ্যুৎ অফিস ঘেরাও


প্রি-পেইড মিটার বন্ধের দাবিতে  বন্দরে পল্লী বিদ্যুৎ অফিস ঘেরাও

বন্দরে পল্লী বিদ্যুৎতের প্রি-পেইড মিটার স্থাপন না করার দাবিতে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন ২২ নং ওয়ার্ডের জনগণ নারায়ণগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর বন্দর জোনাল অফিস ঘেরাও করেছে।

শনিবার সকাল ১০টায় নাসিক ২২ নং ওয়ার্ডের শত শত জনগণ পুলিশের বাধা উপেক্ষা করে বিদ্যুৎ অফিস ঘেরাও কর্মসূচি পালন করে।

পল্লি বিদ্যুৎ জোনাল অফিসের কর্মকর্তারা ২২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সুলতান আহাম্মেদ ভ’ইয়ার নেতৃত্বে তাৎক্ষনিক ২৫ জন গন্যমান্য ব্যক্তি সাথে দীর্ঘ ১ ঘন্টা মতবিনিময় করেন।

জনগণের দাবি পল্লি বিদ্যুৎতের প্রি-পেইড মিটার সম্পর্কে গ্রহকদের সচেতন না করে কোন মিটার বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ স্থাপন করবে না।

এলাকাবাসী জানান দেশের উন্নয়নে সরকারের সিদ্ধান্তকে আমরা স্বাগত জানাই। তরে বিষয়টি জনগণের মাঝে তুলে ধরে এর উপকারিতা ব্যবহার বিধি না জানিয়ে প্রি-পেইড মিটার লাগিয়ে গ্রাহকদের হয়রানি করা যাবে না।

তারা আরো বলেন, অন্যান্য এলাকায় এ মিটার ব্যবহারের সুফল আমরা দেখে পরে আমাদের এলাকায় এ মিটার লাগাতে দেব। অনেকে মন্তব্য করেন এ মিটারে বিদ্যুৎ বিল অধিক হারে নেয়া হয়। গ্রাহকের অজান্তে মিটারে টাকা শেষ হয়ে গেলে তারা চরম ভোগান্তিতে পড়েন। অনকে গ্রাহক এ মিটারের অপকারিতা ভোগান্তির বিষয়টি তুলে ধরেন। নারায়ণগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জিএম মোঃ সাইরুল ইসলাম বলেন, প্রি-পেইড মিটার বিশ্বের ৮২টি দেশে চলমান রযেছে। সরকার বিদ্যুৎ সাশ্রয়সহ উন্নত দেশ গড়ার একটি পদক্ষেপ গ্রহন করেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সবাইকে এ মিটার লাগানোর জন্য আহবান জানিয়েছেন। প্রি-প্রেইড মিটার লাগানো মানে সরকারি সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করা। আমরা বিভিন্ন কর্মশালা ও সেমিনারের মাধ্যমে জনগণকে সচেতন করেই প্রি-পেইড মিটার লাগাবো। এ সময় আপনারা সরকারের  সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে আমাদের সহযোগিতা করবেন।

এদিকে এ মিটারের বিরুদ্ধে অফিসের বাইরে ঘেরাওকারীরা বিভিন্ন শ্লোগান দিতে থাকে। মতবিনিময় শেষে কাউন্সিলর সুলতার সবাইকে শান্ত করে অফিস থেকে নিয়ে যান।

মত বিনিময়কালে গ্রাহকদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন, কাউন্সিলর সুলতান আহেদ ভ’ইয়া, এড. তপন আনোয়ারুল হক, জামান, মোজাম্মেল হক, সাইফুল ইসলাম ভ’ইয়া, মোঃ মাহবুবুর রহমান লাভলু, জসিম উদ্দিন, বন্দর প্রেসক্লাবের প্রধান উপদেষ্টা জিএম মাসুদ, রমিজ উদ্দিন সিকদার, হাজী বদরুল আলম, হাজী আলফাজ উদ্দিন, সারোয়ার হোসেন, মোখলেসুর রহমান, কাজী শাহীন, সৈয়দ মোশারফ হোসেন মশু, আরজু রহমান, জামাল উদ্দিন ও ২১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হান্নান সরকার। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, বন্দর থানার ওসি রফিকুল ইসলাম, ইন্সিপেক্টর (প্রশাসন) হারুন, বন্দর পল্লী বিদ্যুত জোনাল অফিসের ডিজিএম আশরাফুল আলম খান ও গ্রহক সেবা চেয়ারম্যান তানজীম আহাম্মেদ প্রমুখ। 

১৫জুন,২০১৯/এমএ/এনটি

উপরে