NarayanganjToday

শিরোনাম

আইভীকে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম, প্রকাশ্যে ক্ষমা না চাইলে আন্দোলন


আইভীকে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম, প্রকাশ্যে ক্ষমা না চাইলে আন্দোলন

মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীকে নারায়ণগঞ্জবাসীর কাছে ক্ষমা চাইতে বলেছেন ঘাতক দালল নির্মূল কমিটি জেলা শাখার সভাপতি চন্দন শীল। এর জন্য তিনি মেয়রকে ২৪ ঘণ্টা সময় বেঁধে দিয়েছেন। এ সময়ের মধ্যে ক্ষমা না চাইলে নারায়ণগঞ্জবাসীকে সাথে নিয়ে দূর্বার আন্দোলন গড়ে তুলবেন বলেও ঘোষণা দেন চন্দন শীল।

রোববার (১৬ জুন) সকালে চাষাড়া কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বক্তব্য রাখতে গিয়ে মেয়রকে ওই আল্টিমেটাম দেন তিনি।

চন্দনশী সংবাদ কর্মীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, ২০০১ সালে আজকের এইদিনে ভয়াবহ বোমা হামলায় এখানে নির্মমভাবে ২০ মানুষ শহীদ হয়েছে। সেই শহীদদের নাম সম্বলিত একটি স্মৃতি স্তম্ভ রয়েছে এখানে। অথচ এই স্মৃতি স্তম্ভের পাশে লাগোয়া একটি ডাস্টবিন করে রেখেছে সিটি করপোরেশন। কতটা জঘন্য হলে এমন কাজ করতে পারে। তাই আমি আইভীকে সরাসরি বলতে চাই, আমি তাকে ২৪ ঘন্টা সময় দিলাম। এই সময়ের মধ্যে তাকে নারায়ণগঞ্জবাসীর কাছে প্রকাশ্যে এবং সংবাদ পত্রের মাধ্যমে ক্ষমা চাইতে হবে এবং একই সময়ের মধ্যে ডাস্টবিন অপসারন করতে হবে। যদি না চান তাহলে নারায়ণগঞ্জবাসীকে সাথে নিয়ে দূর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।

বক্তব্যের এক পর্যায়ে ১৬ জুনের বোমা হামলার প্রসঙ্গ টেনে চন্দন শীল বলেন, নারায়ণগঞ্জের একটি মহল এই ঘটনাকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতে ঘটনার পর থেকেই নানাভাবে ষড়যন্ত্র করে আসছে। আমি নিশ্চিত করে বলতে পারি বিএনপি-জামাত জোট ও দেশের স্বাধীনতা বিরোধী চক্র এই বোমা হামলায় জড়িত। কেননা ২০০১ সালে বিএনপি-জামাত জোট ক্ষমতায় আসার পরে আমাদের প্রিয় নেতা শামীম ওসমানসহ আমরা যারা ক্ষতিগ্রস্ত সেই তাদেরসহ আওয়ামী লীগের বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে পাল্টা মামলা করে হয়রানি করার চেষ্টা করেছিল। কিন্তু মহামান্য আদালত তাদের মামলা খারিজ করে দিয়েছেন।

তিনি বলেন, মুফতি হান্নান, মোরসালিন ও মোত্তাকিন বারবার স্বীকারোক্তি দিয়ে বলেছে তারা এ ঘটনায় জড়িত। কিন্তু আমি মনে করি তারা শুধু শ্রমিকের দায়িত্ব পালন করেছে। নিশ্চয় এর পরিকল্পনাকারী অন্য কেউ। মোরসালিন ও মোত্তাকিন গ্রেফতার হয়ে ভারতীয় পুলিশ হেফাজতে আছে। তাই সরকারের কাছে দাবি করবো, ভারত থেকে ওদের দেশে ফিরিয়ে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করে মূল পরিকল্পনাকারীকে খুঁজে বের করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে।

১৬ জুন, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে