NarayanganjToday

শিরোনাম

সাইনবোর্ডে বাস চাপায় শিক্ষার্থী নিহত, বন্ধন বাসে আগুন


সাইনবোর্ডে বাস চাপায় শিক্ষার্থী নিহত, বন্ধন বাসে আগুন

ফতুল্লার সাইনবোর্ড এলাকায় বেপরোয়া বাসের চাপায় এক হোন্ডারোহীর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। এসময় গুরুতর আহত হয়েছেন আরও এক আরোহী। তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী বন্ধন পরিবহনের একটি বাসে আগুন ধরিয়ে দেওয়াসহ বেশ কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুর চালিয়েছে।

রোববার (৭ জুলাই) রাত পৌনে ১০ টার দিকে এই ঘটনাটি ঘটে। এই ঘটনায় প্রায় দেড় ঘণ্টার মতো সড়ক অবরোধ করে রাখে বিক্ষুব্ধ লোকজন। পরে ফতুল্লা থানা পুলিশের ওসি মো. আসলাম হোসেন ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে যান চলাচল স্বাভাবিক করেন। আগুনে পুড়ে যাওয়া এবং শিক্ষার্থীকে চাপা দেওয়া বন্ধন বাসসহ দুর্ঘটনার কবলে পরা মোটর সাইকেলটি আটক করেছে পুলিশ।

নিহত হোন্ডারোহী সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি কান্দাপাড়া এলাকার গিয়াসউদ্দিন আব্বাসের ছেলে নূর আলম হোসেন  বাদল (১৮)। এবং আহত হৃদয় তার বন্ধু।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন ফতুল্লা থানা পুলিশের অফিসার-ইন-চার্জ (ওসি) মো. আসলাম হোসেন।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, একটি লাল রঙের পালসার (ঢাকা মেট্রে এলএ ২২-০২০২) যোগে দুজন আরোহী সানারপাড় থেকে সাইনবোর্ডের দিকে আসলে একটি বন্ধন পরিবহনের বাস (ঢাকা মেট্রো ব ১৪-২৬২৩) তাদেরকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই একজন মারা যায় এবং অপরজন গুরুতর আহত হয়। এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী অপর একটি বন্ধন পরিবহনের বাসে আগুন ধরিয়ে দেয় এবং রাস্তার অবরোধ করে। এতে উভয় দিকের যান চলাচল বন্ধ হয়ে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। পরে খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে।

নিহতের বোন নূর জাহান আক্তার বৃষ্টি জানান, হোন্ডাযোগে সানারপাড় থেকে সাইনবোর্ড যাচ্ছিলেন তার ভাই নূর আলম হোসেন বাদল ও তার বন্ধু হৃদয়। পথিমধ্যে বেপরোয়া বন্ধন পরিবহনের একটি গাড়ি তাদের হোন্ডাকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই তার ভাই মারা যান এবং আহত হন তার ভাইয়ের বন্ধু। তারা দুজনই শিক্ষার্থী।

৭ জুলাই, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে