NarayanganjToday

শিরোনাম

বয়স্কভাতা বৃদ্ধিতে সরকার প্রশংসার দাবিদার : শকু


বয়স্কভাতা বৃদ্ধিতে সরকার প্রশংসার দাবিদার : শকু

শহর সমাজসেবা অধিদপ্তরের আয়োজনে ও এটুআই প্রোগ্রাম, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সহযোগিতায় ‘সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনী কার্যক্রমের আওতায় ভাতাসমূহ ডিজিটাল উপায়ে প্রদান সংক্রান্ত অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

বৃহস্পতিবার ( ১৮ জুলাই) দুপুরে ১২নং ওয়ার্ডে বার একাডেমী স্কুলে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শওকত হাসেম শকু বলেন, প্রথম ছিলো বয়স্কভাতা ২’শ টাকা। এখন বাড়তে বাড়তে এই ভাতা ৫’শ টাকার মত হয়েছে। সরকার অবশ্যই এটা প্রশংসার দাবিদার। কারণ, এই টাকাতো আপনারা (বয়স্করা) পাচ্ছেন এবং এটা বৃদ্ধি পাচ্ছে, আস্তে আস্তে আরও বাড়বে। এখন এই টাকাগুলো ডিজিটালাইজ করার জন্য যে পরিকল্পনা করেছে, আপনাদের ইতিমধ্যেই অবহিত করা হয়েছে। আমরা বিশ্বাস আপনারা সবাই বুঝতে পেরেছেন। না বুঝলে আমরা আছি, আমাদের কাছে আসবেন।

তিনি বলেন, সমাজ সেব অধিদপ্তর ও ব্যাংকের যে বিরম্বনা আছে। আমাদের কাছে মানুষ প্রায় যায়, তারা অনেক সময় হয়রানীর শিকার হয়। এ হয়রানী থেকে যাতে তারা মুক্তি পায় এবং সহজে যেন টাকাটা পায়, এ বিষয় সমাজ সেবা অধিদপ্তরের যারা আছেন, তারা একটু খেয়াল করবেন। পাশাপাশি আরেকটা যেটি হচ্ছে, বয়স্ক মা-বাবা, ভাই-বোন বা মুরুব্বিরা যারা আছেন, তারা প্রায় ব্যাংকে যেতে পারেন না। না যেতে পারার ফলে তাদের নমিনিরা যান, কিন্তু তারা টাকা ওঠাতে পারেন না। এ জিনিষটাও আপনারা (সমাজ সেব অভিদপ্তর) খেয়াল রাখবেন।

তিনি আরও বলেন, যেহেতু ডিজিটালাইজ হয়েছে সেহেতু আপনারা এই রকম ব্যবস্থা করবেন যাতে যারা একেবারেই বয়স্ক, যারা ব্যাংকে যেতেই পারেন না, তাদের নমিনিরা যেন সেই টাকাটা নিয়ে আসতে পারেন। তাহলে বয়স্কদের জন্য এবং তাদের পরিবারের জন্য অনেক ভালো হবে।

প্রকল্প সমন্বয় পরিষদের সভাপতি সামছুজ্জামান ভাষানীর সভাপতিত্বে সভা উপস্থিত ছিলেন, ১৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কবির হোসাইন, প্রকল্প সমন্বয় পরিষদের সহ সভাপতি আরিফ মিহির, শহর সমাজসেবা অধিদপ্তরের সহকারি পরিচালক সহিদুল ইসলাম, অফিসার শিখা সরকার প্রমূখ।

১৮ জুলাই, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে