NarayanganjToday

শিরোনাম

এবার ফতুল্লায় ‘ছেলেধরা’ সন্দেহে ব্যবসায়ীকে গণধোলাই


এবার ফতুল্লায় ‘ছেলেধরা’ সন্দেহে ব্যবসায়ীকে গণধোলাই

সিদ্ধিরগঞ্জের পর এবার ফতুল্লায় ছেলেধরা সন্দেহে রাসেল মিয়া নামের এক ফুল ব্যবসায়ীকে গণধোলাই দিয়েছে উত্তেজিত জনতা। পুলিশ খবর পেয়ে ওই ব্যবসায়ীকে উদ্ধার করে আটক দেখিয়েছে।

শনিবার (২০ জুলাই) রাত সাড়ে ৯ টার দিকে ফতুল্লার লালখাঁ এলাকায় ওই ঘটনা ঘটে। আটক ফুল ব্যবসায়ী রাসেল মিয়া রাজধানীর জুরাইন দারোগা বাড়ি রোডের নূর হোসেনের ছেলে।

ঘটনার সত্যা নিশ্চিত করে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশের অফিসার-ইন-চার্জ (ওসি) মো. আসলাম হোসেন জানিয়েছেন, তার ব্যাপারে খোঁজ খবর নেওয়া হচ্ছে। বিস্তারিত পরে জানানো হবে।

এদিকে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, লাল খা এলাকার ইবু মিয়ার ভাড়াটিয়া শাজাহানের ৬ বছরের মেয়ে প্রিয়া দোকান থেকে বিস্কুট কিনে বাড়ি ফেরার পথে অজ্ঞাত ব্যক্তি (রাসেল) তাকে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এসময় লোকজন কাছে চলে আসায় ওই ব্যক্তি দৌঁড়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে স্থানীয়দের লেছেধরা হিসেবে সন্দেহ হয়। পরে এলাকাকার মানুষ উত্তেজিত হয়ে তাকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে।

অপরদিকে রাত ১১ টার দিকে ফতুল্লায় থানায় এসে আটক ব্যক্তিকে সানাক্ত করেন নাসিমা নামের এক নারী। তিনি জানা আটক ব্যক্তির নাম রাসেল। সে একজন ফুল ব্যবসায়ী এবং তিনি তার স্বামী। সে ছেলে ধরা নন।

প্রসঙ্গত, শনিবার সকালে সিদ্ধিরগঞ্জের আলামিন নগরে ছেলেধরা গুজবে সিরাজ নামে এক প্রতিবন্ধী যুবককে পিটিয়ে হত্যা করে উৎসুক জনতা। এছাড়াও একই ধরণের কাণ্ডে শারমীন নামে আরও একজন নারীকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করা হয় পাইনাদী নতুন মহল্লা শাপলা চত্বর এলাকায়।

২০ জুলাই, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে