NarayanganjToday

শিরোনাম

ফাঁকা বাড়ি পেয়ে ভাগ্নিকে ধর্ষণের চেষ্টায় শ্রীঘরে মামা


ফাঁকা বাড়ি পেয়ে ভাগ্নিকে ধর্ষণের চেষ্টায় শ্রীঘরে মামা

ফতুল্লায় ভাগ্নিকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে মামাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার (১৯ আগস্ট) রাতে ভাগনির দায়ের করা মামলায় তার মামাকে গ্রেফতার করা হয়। এর আগে গত ১৮ আগস্ট ভোরে ফতুল্লার মুসলিমনগর নয়াবাজার গিয়াস উদ্দিনের ভাড়া বাড়ীতে এ ধর্ষন চেষ্টার ঘটনা ঘটে। 

অভিযুক্তের নাম রিপন (২১)। সে পটুয়াখালীর গলাচিপা থানাধীন মাঝগ্রামের বাসিন্দা আবুল কাশেম খানের ছেলে। বর্তমানে মুসলিমনগর নয়াবাজার গিয়াস উদ্দিনের ভাড়া বাড়ীতে স্বপরিবারে বসবাস করে একটি গার্মেন্টসে চাকুরী করত।

মামলার এজাহারের বরাত দিয়ে ফতুল্লা মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবুল কাশেম জানান, ‘অভিযুক্ত রিপন ও তার ভাগ্নি ভিকটিম (১৫) একই বাড়ীতে আলাদা ঘর ভাড়া নিয়ে বসবাস করত। তারা উভয়েই গার্মেন্টসে চাকুরী করে। রিপন ওই মেয়েটির চাচাত মামা। ঈদের ছুটিতে রিপন তার পরিবার নিয়ে গ্রামের বাড়িতে যায়। এরপর গত ১৮ আগস্ট ভোর সকালে রিপন একাই তার ভাড়া বাসায় ফিরে আসে। এসময় তার ভাগ্নিকে খাবার রান্না করতে বলে। ভিকটিম কিশোরী রান্নার কাজে রিপনের ঘরে ঢুকলে রিপন তাকে ধর্ষণের উদ্দেশ্যে মুখ চেপে ধরে যৌন পীড়ণ চালায়। মেয়েটি রিপনের হাত থেকে রক্ষা পেতে ধস্তাধস্তির একপর্যায়ে নিজের ঘরে চলে যেতে সক্ষম হয়। এমন ঘটনায় সোমাবার (১৯ আগস্ট) রাতে মেয়েটি ফতুল্লা মডেল থানায় অভিযুক্ত রিপনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করলে তাকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।’

২০ আগস্ট, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে