NarayanganjToday

শিরোনাম

তাদের মূল টার্গেটই ছিলো সম্পদশালী লোকজন


তাদের মূল টার্গেটই ছিলো সম্পদশালী লোকজন

র‌্যাব পরিচয় দিয়ে উৎকোচ গ্রহণকালে র‌্যাব-১১ এর সদস্যদের হাতে আটক হয়েছে ‘ভুয়া র‌্যাব’ চক্রের তিন সদস্য। ২৪ আগস্ট দিবাগত রাতে রূপগঞ্জ উপজেলার রূপসী এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়।

আটকরা হলেন, কুড়িগ্রাম জেলার উকিলপুর থানাধীন মাসতীবাড়ী দীঘর এলাকার আব্দুল মান্নানের ছেলে জয়নাল আবেদীন (২৭), গাজীপুর জেলার সদর থানাধীন জান্দালিয়া পাড়া এলাকার মৃত মুসলেম উদ্দিনের ছেলে নাজমুল হোসেন (২৭) এবং কিশোরগঞ্জ জেলার কটিয়াদি থানাধীন চরজাকারিয়া গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে মোস্তাফিজুর রহমান (২৯)।

তাদের কাছ থেকে র‌্যাবের ইউনিফরম পরিহিত ছবি (এডিটিং করা) ২ টি, বাংলাদেশ র‌্যাব লেখা ও র‌্যাবের মনোগ্রাম স¤¦লিত জ্যাকেট ১টি, র‌্যাব সদর দপ্তরের সীল ও অফিসারদের ভুয়া স্বাক্ষর স¤¦লিত নোটিশ ৭টি, র‌্যাব সদর দপ্তরের গোয়েন্দা অফিসার, ডিউটি অফিসার ও তদন্তকারী অফিসার নামীয় সীল ৪টি, বিজিবি’র আইডি কার্ড ১টি, বিজিবি ইউনিফরম ১ সেট, ল্যাপটপ ১টি, প্রিন্টার ১টি, মোবাইল ১টি ও ১৪টি সীম জব্দ করা হয়।

র‌্যাব-১১ এর উপ-পরিচালক মেজর তালুকদার নাজমুছ সাকিব স্বাক্ষরিত এক বার্তায় এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, ভুয়া র‌্যাবের হাতে প্রতারণার শিকার একজন ভুক্তভোগির কাছ থেকে প্রাপ্ত অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু করতে গিয়ে দেখা গেছে, র‌্যাব সদর দফতরের সীলমহরসহ একটি ভুয়া নোটিশ তৈরি করে বিভিন্ন জনের কাছে প্রেরণ করা হয়। এরপরই ভুক্তভোগিদের জানানো হয় উৎকোচ দিলে এ অভিযোগ থেকে নিস্তার মিলবে। এরমধ্যে ২৪ আগস্ট রাতে একজন ভুক্তভোগি ভুয়া র‌্যাব সদস্যদের উৎকোচ প্রদানকালে তাদেরকে আটক করা হয়েছে।

তালুকদার নাজমুছ সাকিব আরও জানান, আটকৃতদের বর্তমান ঠিকানা গাজীপুর। তাদের প্রধানের নাম জয়নাল আবেদীন। সে বিজিবিতে চাকরী করতো। কিন্তু তিনি ২০১৭ সালে বিজিবি থেকে পালিয়ে আসে। এরপরই তিনি গঠন করেন একটি প্রতারকচক্র। এই চক্রের সদস্যরা নিজেদের র‌্যাব পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন জনকে গ্রেফতার ও ক্রসফায়ারের ভয়ভীতি দেখিয়ে নানা সময় টাকা পয়সা হাতিয়ে নিতো। বিশেষ করে তাদের টার্গেট ছিলো সম্পদশালী ব্যক্তিরা।

২৫ আগস্ট, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে