NarayanganjToday

শিরোনাম

‘কে কোথায় আছেন, বাঁচান’ সন্তানদের আর্তনাদে মায়ের প্রাণ রক্ষা


‘কে কোথায় আছেন, বাঁচান’ সন্তানদের আর্তনাদে মায়ের প্রাণ রক্ষা
প্রতীকি ছবি

‘কে কোথায় আছেন আমার মাকে বাঁচান। আমার মাকে মেরে ফেলছে আমার বাবা।’ রাস্তায় দাঁড়িয়ে ছেলে মেয়েদের এমন আর্তনাদের সময় স্থানীয় এলাকাবাসী সহযোগীতায় নেশাগ্রস্থ স্বামীর কবল থেকে প্রাণে বেঁচেছেন ২ সন্তানের জননী ঝর্না বেগম (২৮)।

গৃহবধূর অভিযোগ নেশা সেবনের টাকা দিতে না পারায় পাষান্ড স্বামী সবুজ মিয়া ক্ষিপ্ত হয়ে তোয়ালী পেচিয়ে হত্যার চেষ্টা চালায়। ২৪ আগস্ট বিকেল ৪টায় বন্দর থানার শুভকরদীস্থ নামাপাড়া এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে।

প্রতিবেশী সূত্রে জানা গেছে, গত ১২ বছর পূর্বে বন্দর থানার শুভকরদী নামাপাড়া এলাকার মোজাম্মেল মিয়ার ছেলে সবুজ মিয়ার সাথে মুন্সিগঞ্জ জেলার গজারকান্দী এলাকার শাহাবুদ্দিন বেপারী মেয়ে ঝর্না বেগমের সাথে বিয়ে হয়। বিয়ের পর তাদের সংসারে সুমাইয়া (১১) নামে একটি কন্যা সন্তান ও আমানতু (৭) নামে একটি পুত্র সন্তান রয়েছে।

প্রায় সময় স্বামী সবুজ মিয়া নেশা সেবনের টাকার জন্য তার স্ত্রী ঝর্না বেগমকে শাররিক ভাবে নির্যাতন করে আসছে। এর ধারবাহিকতায় গত শনিবার বিকেল ৪টায় মাদক সেবী স্বামী সবুজ মিয়া তার স্ত্রীর কাছে  মাদক ব্যবসা করার জন্য ২০ হাজার টাকা দাবি করে। গৃহবধূ টাকা দিতে পারবেনা বলে জানালে ওই সময় মাদক সেবী পাষান্ড স্বামী ক্ষিপ্ত হয়ে বেদম পিটিয়ে গলায় তাওয়ালে পেচিয়ে হত্যার চেষ্টা চালায়। ওই সময় এলাকাবাসী দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে দরজা খুলে গৃহবধূকে উদ্ধার করে।

এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত রোববার বিকেলে মাদকসেবী স্বামী সবুজ মিয়ার ভয়ে গৃহবধূ ও তার ছেলে মেয়ে পালিয়ে তার পিত্রালয়ে চলে যায় বলে জানা গেছে। 

২৫ আগস্ট, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে