NarayanganjToday

শিরোনাম

সেলিম ওসমানের সাথে বাগবিতণ্ডায় হামলা ভাঙচুর, আতঙ্কে পাম্প বন্ধ


সেলিম ওসমানের সাথে বাগবিতণ্ডায় হামলা ভাঙচুর, আতঙ্কে পাম্প বন্ধ

সাংসদ সেলিম ওসমানের ভয়ে দীর্ঘ ষোল ঘণ্টা ধরে বন্ধ রয়েছে শিবু মার্কেট (ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোড) এলাকার শাহাবুদ্দিন সিএনজি পাম্প। হামলা ও মারধরের শিকার হওয়ার আশঙ্কায় বুধবার রাতেই পাম্পটিতে তালা লাগিয়ে পালিয়ে যায় এর সাথে সংশ্লিষ্ট সকলেই।

এর আগে নিজ গাড়িতে ওই পাম্পে সিএনজি লোড করার জন্য গিয়েছিলেন সাংসদ সেলিম ওসমান। তখন পাম্পটির কয়েকজন স্টাফের সাথে তার বাগবিত-তা হয়। এরপরই সাংসদের ফোন পেয়ে চাষাড়া থেকে ঘটনাস্থলে ছুটে যান যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ স্থানীয় যুবলীগ নেতাকর্মীরা।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, বুধবার রাত সাড়ে ১০ টার দিকে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সাংসদ সেলিম ওসমান শিবু মার্কেট এলাকার শাহাবুদ্দিন সিএনজি পাম্পে গ্যাস নিতে গেলে পাম্পের স্টাফদের সাথে তর্ক হয় গাড়ি চালকের। পরে এ ঘটনায়  সাংসদ নিজেও তর্কে জড়িয়ে যান। তখন সাংসদ সেলিম ওসমান নিজের গাড়িতে উঠে ঢাকার দিকে রওনা দেন এবং চেম্বার অব কর্মাসের সভাপতি খালেদ হায়দার খান কাজলকে বিষয়টি ফোনে জানান।

সূত্র জানায়, খালেদ হায়দার খান কাজল সাংসদের ফোন পেয়ে চাষাড়া থেকে একটি দল নিয়ে শিবু মার্কেটের দিকে রওনা দেন এবং ওদিকের আজমত, গিয়াসউদ্দিন ও ফতুল্লা থানা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ফায়জুল ইসলামকেও কল করেন। পরে একত্রিত হয়ে সবাই পাম্পের দিকে ছুটে যান। এবং পাম্পটির সিসি ক্যামেরা ও একটি মেশিন ভাঙচুর চালায়।

তবে, তারা পাম্পে পৌঁছার আগেই সকল স্টাফারা হামলা ও মারধরের আশঙ্কায় পাম্পটি তালা লাগিয়ে পালিয়ে যায়। এরপর থেকেই ওই সিএনজি পাম্পটি এই রিপোর্ট লেখা (দুপুর আড়াইটা) পর্যন্ত বন্ধ রয়েছে। সেখানে গিয়ে কাউকে পাওয়া যায়নি। এমনকি এ ব্যাপারে পাম্পের আশেপাশের কেউ ভয়ে মুখও খুলছেন না।

এদিকে এ ব্যাপারে জানতে নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি খালেদ হায়দার খান কাজলের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি তা রিসিভ করেননি। ফলে তার পক্ষ থেকে কোনো রকম বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

অন্যদিকে যুবলীগ নেতা হিসেবে পরিচিত আজমতের কাছে এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি জানান, ‘এ ব্যাপারে আমি কিছু জানি না। ওখানে আমি যাই নাই।’

এ প্রসঙ্গে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশের অফিসার-ইন-চার্জ (ওসি) বলেন, ‘ঘটনার সংবাদ পেয়ে পাম্পটিতে আমরা গিয়েছি। সেখানে কাউকে পাওয়া যায়নি। এ ব্যাপারে এখনও কেউ কোনো অভিযোগ দায়ের করেনি। অভিযোগ পেলে আমরা ব্যবস্থা নেব। পাম্পটি বন্ধ রয়েছে। কেন বন্ধ আছে তা জানার জন্য মালিক পক্ষের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা চলছে।’

২৯ আগস্ট, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে