NarayanganjToday

শিরোনাম

সন্ত্রাসী হামলায় কবি মিতা ও তার স্বামী গুরুতর আহত


সন্ত্রাসী হামলায় কবি মিতা ও তার স্বামী গুরুতর আহত

বন্দরে মিতা প্রধান নামে এক কবি ও তার স্বামী তাজুল ইসলাম খন্দকার সন্ত্রাসী হামলায় গুরুতর আহত হয়েছেন। পারিবারিক ও সম্পত্তি বিষয়ক দ্বন্দ্বের জের ধরে সংঘবব্ধ ভাবে সন্ত্রাসীরা এই হামলা চালায়।

৮ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় উপজেলার মদনপুর দেওয়ানবাগ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় কবি মিতার স্বাসী তাজুল ইসলাম বাদী হয়ে ৫ জনকে অভিযুক্ত করে সংশ্লিষ্ট থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

পুলিশ অভিযুক্ত নুরুল আমিন খন্দকার ও মোনাজাত খন্দকার নামে দুই জনকে ঘটনার রাতেই গ্রেফতার করে। সোমবার (৯ সেপ্টেম্বর) তাদেরকে আদালতে প্রেরণ করলে আদালত অভিযুক্তদের জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দিয়েছেন।

এদিকে হামলাকারী সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে মামলা করেও বিপাকে পড়েছেন ভুক্তভোগি ওই কবি ও তার স্বামী। হামলাকারীদের স্বজনেরা মামলা তুলে নিতে অনবরত হুমকি দিয়ে আসছেন। এতে চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছেন কবি মিতা প্রধান ও তার স্বামী তাজুল ইসলাম।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা গেছে, মদনপুরের দেওয়ানবাগ খন্দকার বাড়ির বউ কবি মিতা প্রধান ও তার স্বামী তাজুল ইসলাম ইসলামের সাথে পারিবারিক ও সম্পত্তি জোর পূর্বক দখলের চেষ্টায় গত ৮ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা ৬টায় নুরুল আমিন, মোনাজাত খন্দকার, জারিন, কুলসুম, তাইফুন নাহার মুক্তিসহ আরও কয়েকজন সন্ত্রাসী পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে তাজুল ইসলাম খন্দকারের বসত বাড়িতে প্রবেশ করে বিভিন্ন আসবাবপত্র ভাংচুর করতে থাকে। এসময় তাজুল ইসলাম ও তার স্ত্রী কবি মিতা প্রধান বাধা দিলে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে তাদের হাতে থাকা লোহার রড ও লাঠিসোটা দিয়ে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে রক্তাক্ত করে। এসময় তারা মিতাকে শ্লীলতাহানীসহ তাদের বাড়ি থেকে নগদ ৮ লক্ষ টাকা ও দুটি স্বর্ণের গহনা সেট যার ওজন প্রায় ১১ ভরি নিয়ে যায় সন্ত্রাসীরা।

৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে