NarayanganjToday

শিরোনাম

দেওভোগের ঐতিহ্যবাহী তাজিয়া মিছিলে মানুষের ঢল


দেওভোগের ঐতিহ্যবাহী তাজিয়া মিছিলে মানুষের ঢল

হিজরী বছরের প্রথম মাস মহরম মাস। এই  মাস ইসলামের ইতিহাসে ঘটনাবহুল মাস। ১০ মহরম ইসলামের ইতিহাসের অন্যতম হৃদয় বিদারক ও মর্মস্পর্শী ঘটনার দিন তথা পবিত্র আশুরা। এ মাসের ১০ তারিখে সর্বশক্তিমান আল্লাহ্ এ পৃথিবী সৃষ্টি করেছেন এবং এ দিনেই পৃথিবী ধ্বংস করবেন। 

প্রায় ১৪শ’ বছর ধরে বিশ্ব মুসলিম উম্মাহ এ দিনটিকে শোকের দিন হিসেবে পালন করে আসছেন। বিশ্বের ইতিহাসেও দিনটি অন্যতম শোকের দিন হিসেবে স্বীকৃত। সারা বিশ্বের মুসলিম উম্মাহ্ সহ¯্রাধীক কাল ধরে এই তাৎপর্যপূর্ণ মাস মর্মস্পর্শী দিন ১০ মহরমকে যেভাবে রোজা, নামাজ, দোয়া, ইবাদত, ত্যাগ ও বিভিন্ন আয়োজনের মাধ্যমে পালন করে আসছেন। তেমনি পালন করছেন আমাদের নারায়ণগঞ্জবাসীও।

পবিত্র আশুরা উপলক্ষে মঙ্গলবার (১০ সেপ্টেম্বর) বিকালে নগরীর দেওভোগ এলাকা থেকে থেকে বের করা হয় ১১৯ বছরের ঐতিহ্যবাহী তাজিয়া মিছিল। আহেলা সুন্নত ওয়াল জামায়াতের ব্যানারে এক সময় এ তাজিয়া মিছিলের সিলসিলায় নেতৃত্ব দিতেন বিলুপ্ত নারায়ণগঞ্জ পৌরসভার প্রাক্তন চেয়ারম্যান প্রয়াত আলী আহাম্মদ চুনকা, ঐ মহরম বাড়ির মরহুম রুস্তম আলী, মরহুম জমির আহাম্মদ জমু, মরহুম আমিনুল ইসলাম সেক্রেটারী, হানিফ প্রধান, মরহুম শফিউদ্দিন শফি এবং রুস্তম আলীর ছেলে নাজিম উদ্দিন। আর এখন এ সিলসিলার নেতৃত্বে আছেন মরহুম রুস্তম আলীর ছেলে নাজিম উদ্দিন, আলী রেজা রিপন, আলী রেজা উজ্জল, আলী রেজা চঞ্চল, সাজ্জাদ হোসেন দিপু, গোলাম সারোয়ার শুভ, রুবেল, সেলিম হোসেন, আব্দুল হালিম, হাসান উল রাকিবসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

প্রতি বছরের ন্যায় এবারো দেওভোগের তাজিয়া মিছিলে ঢল নামে মানুষের। বুক চাপড়ে, ‘হায় হোসেন, হায় হোসেন’ মাতমে ফোরাত তীরের কারাবালার ঘটনাকে স্মরণ করেন তারা। এতে অংশগ্রহণকারীদের অনেকের পরনেই কালো পাজামা-পাঞ্জাবি দেখা যায়। তাদের হাতে হাতে ঝালর দেওয়া লাল, কালো, সবুজ ঝা-া ছিলো। মিছিলটি দেওভোগ থেকে বের হয়ে নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে মন্ডলপাড়া এলাকায় গিয়ে শেষ হয়।

১১ সেপ্টেম্বর,২০১৯/এমএ/এনটি

উপরে