NarayanganjToday

শিরোনাম

বন্দরে ডিবি পুলিশের উপর হামলায় আসামী ৮২, গ্রেফতার দুই


বন্দরে ডিবি পুলিশের উপর হামলায় আসামী ৮২, গ্রেফতার দুই

বন্দরে নারায়ণগঞ্জ জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের উপর হামলার অভিযোগে ১২ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও ৬০ থেকে ৭০ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের হয়েছে। এ ঘটনায় দুজনকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।

রোববার (২২ সেপ্টেম্বর) দুপুরের দিকে ডিবি পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বাদী হয়ে ওই মামলাটি দায়ের করেন।

মামলার আসামীরা হলেন, সালাউদ্দিন সালু, তার শ্বশুর ওসমান গণি, বিএনপি নেতা আমান সরদারের ছেলে আহম্মদ আলী ও মোহাম্মদ আলী, আব্দুর রাজ্জাক, আলমগীর, ইদ্রিস আলীর ছেলে হোসেন, সোভা মিয়ার ছেলে বাবু ওরফে গালকাটা বাবু, আব্দুল কুদ্দুসের ছেলে ইমরান, সালাউদ্দিন সালুর স্ত্রী সালমা আক্তার এবং ফরিদ মিয়ার মেয়ে শিউলি বেগম।

এর আগে ২১ সেপ্টেম্বর রাত সাড়ে ১০ টার দিকে বন্দর উপজেলার বাগবাড়ি এলাকার শীর্ষ সন্ত্রাসী ওসমান গণির মেয়ের জামাই সালাউদ্দিন সালুকে আটক করতে যায় ডিবি পুলিশের একটি টিম। ওই সময় পুলিশের উপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে সন্ত্রাসী সালুর সহযোগিরা। এ ঘটনায় পুলিশ আত্মরক্ষার্থে গুলি ছুড়লে নাদিম নামে এক যুবক গুলিবিদ্ধ হয়।

এই ঘটনার খবর পেয়ে বন্দর থানা থেকে অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে সন্ত্রাসী সালাউদ্দিন সালুকে অস্ত্র ও গুলিসহ আটক করে ডিবি। সে ক্রসফায়ারে নিহত মাস্টার দেলুর সেকেন্ড-ইন-কমান্ড এবং ক্রসফায়ারে নিহত পিচ্চি সুমনের ভাতিজা।

মামলা দায়েরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন বন্দর থানা পুলিশের ওসিস (তদন্ত) মো. আজহারুল ইসলাম। তিনি জানান, ডিবি পুলিশের উপর হামলা চালানোর ঘটনায় একটি এবং অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় পৃথক একটি মামলা দায়ের হয়েছে। যার নং ৩৮ ও ৩৯। অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় একমাত্র আসামী করা হয়েছে সালাউদ্দিন ওরফে সালুকে।

আজহারুল ইসলাম আরও জানান, পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় ১২ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও ৬০ থেকে ৭০ জনকে আসামী করা হয়েছে। এসআই মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন। দায়ের করা মামলায় দুজনকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। এর একজন হচ্ছে অস্ত্রসহ আটক সন্ত্রাসী সালাউদ্দিন সালু এবং তার শ্বশুর ওসমান গণি। অন্যদের গ্রেফতারে অভিযান চালানো হচ্ছে।

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে