NarayanganjToday

শিরোনাম

আমি কারো ব্যক্তিগত নই, সবার শ্রমে আমার বেতন-খাওয়া চলে : ডিসি


আমি কারো ব্যক্তিগত নই, সবার শ্রমে আমার বেতন-খাওয়া চলে : ডিসি

বিকেএমইএ’র নতুন কমিটিকে অভিনন্দন জানিয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মো. জসিম উদ্দীন বলেছেন, এই সংগঠন কিন্তু রাজনৈতিক নয়। ব্যক্তি সংগঠন নয়। সংগঠনের মধ্যে গণতন্ত্র ধরে রাখা আপনাদের সবার দায়িত্ব।

বৃহস্পতিবার (৩ অক্টোবর) রাতে ফতুল্লার নাসিম ওসমান মেমোরিয়াল (নম) পার্কে বিকেএমইএ’র নতুন কমিটির নির্বাচিতদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ওই কথা বলেন তিনি।

জসিম উদ্দীন বলেন, আমি আগেই বলেছি, আমি কারো ব্যক্তিগত লোক নই। আমি আমার কাজ দিয়ে তা প্রমাণ করবো। আমি জেলা প্রশাসক সবার। এখানে উঁচু নিচু ধনী গরীব শ্রেণির বলে কিছু নেই। আপনাদের ত্যাগে আমি জেলা প্রশাসক। আপনাদের শ্রমে আমার বেতন চলে, খাওয়া চলে। আমার দরজা সবার জন্য খোলা। আপনাদের কথা আমাকে বলবেন, আমি সেসব কথা সরকারের কাছে পৌঁছে দিবো।

নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্সের উদ্যোগে আয়োজিত এই সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন সংগঠনটির সভাপতি খালেদ হায়দার খান কাজল। এতে উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক কমান্ডার মোহাম্মদ আলী।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জসিম উদ্দীন আরও বলেন, উন্নয়নের মহাসড়কে এখন দেশ। এই উন্নয়নে বিকেএমইএ বিশেষ করে নারায়ণগঞ্জে নীট সেক্টরেরও অবদান রয়েছেন। তবে, আমি বলতে চাই, এখানকার হোসেয়ারীগুলোতে শিশু শ্রম চলছে, কিছুদিন জামদানী পল্লীতে আমরা শিশু শ্রমের জন্য জরিমানা করেছি। ফলে এ ব্যাপারে সতর্ক থাকা দরকার। আমরা উন্নয়ণ করবো কিন্তু সেটা দেখে শুনে করবো। এসব বিষয়গুলো সবাইকে লক্ষ্য রাখা উচিৎ। যাতে আমাদের জরিমানা করতে না হয়।

আপনারা যেসব উদ্যোগের কথা আমাকে বলেছেন, আমি সেসব সরকারের উচ্চ পর্যায়ে পৌঁছে দেওয়ার দায়িত্ব পালন করবো। ইতোমধ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কয়েকদিন আগেই আমাদের সাথে অনুষ্ঠান হয়েছিলো। আমি কিন্তু সেখানে নারায়ণগঞ্জবাসীর পক্ষে এখানে একটি মেডিক্যাল কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়সহ অন্যান প্রয়োজনীয় দাবি জানিয়েছিলাম।

তিনি বলেন, আমরা সকলে মিলেই এই নারায়ণগঞ্জ গড়বো। আমরা চাই নারায়ণগঞ্জের উন্নয়ন। মানুষ যাতে দেখলে বলে নারায়ণগঞ্জের উন্নয়ণ হয়েছে। এ জন্য আপনারা সবাই আমাদের জানাবেন, আমরা সবার সাথে শ্রদ্ধার সাথে কাজ করতে চাই। আমাকে ডাকবেন, যে যেখানে ডাকবেন আমরা সেখানেই যাবো।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, বিকেএমইএ’র সভাপতি ও সাংসদ সেলিম ওসমান, পরিচালনা পর্ষদে প্রথম সহ সভাপতি এমএ হাতেম, দ্বিতীয় সহ সভাপতি অমল পোদ্দার, তৃতীয় সহ সভাপতি গাওহার সিরাজ জামিল এবং সহ সভাপতি (অর্থ) মোরশেদ সারোয়ার, নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কর্মাস’র সাবেক সহ সভাপতি মো. রাশেদ সারোয়ার, জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সিনিয়র সহ সভাপতি মাসুদুর রউফ, বাংলাদেশ ইয়ার্ন মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সিনিয়র সহ সভাপতি মাহফুজুর রহমান খান প্রমূখ।

প্রসঙ্গত, গত ২২ সেপ্টেম্বর মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিনে নীট শিল্প মালিকগন ২৭টি পদের বিপরীতে ২৭টি মনোনয়নপত্র নির্বাচন বোর্ডেও চেয়ারম্যানের কাছে হস্তান্তর করেন। যেহেতু ২৭টি সদস্য পদের বিপরীতে ২৭টি মনোনয়নপত্র জমা পড়ে, সেহেতু ২৬ অক্টোবার ভোট গ্রহণের কথা থাকলেও বাণিজ্য সংগঠন বিধিমালার বিধি ১৭ অনুযায়ী তার প্রয়োজন পড়ে না। ফলে বিধি অনুযায়ী ৩ অক্টোবার ২০১৯-২১ মেয়াদে ২৭ সদস্য বিশিষ্ট বিকেএমইএ’র পরিচালনা পর্ষদ নির্বাচিত হয়।

৩ অক্টোবর, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে