NarayanganjToday

শিরোনাম

মুসলিম নগরের সেই ফার্মেসীকে বন্ধ করে দিয়েছে সিভিল সার্জন


মুসলিম নগরের সেই ফার্মেসীকে বন্ধ করে দিয়েছে সিভিল সার্জন

ফতুল্লা মুসলিম নগর এলাকার জনপ্রিয় ফার্মেসী বন্ধ করে দিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা সিভিল সার্জন। বুধবার (২৩ অক্টোবর) দুপুরের দিকে এক নবজাতকের মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে ওই ফার্মেসীতে অভিযান চালিয়ে তার বন্ধ করে দেওয়া হয়।

এর আগে ১০ অক্টোবর ইউনুস নামে এক ব্যক্তির প্রসূতি স্ত্রীর বাচ্চা ডেলেভারী করানো হয় ওই ফার্মেসীতে। কোনো রকম নিরাপত্তা ছাড়াই এই ডেলেভারী করা হয় কোনো রকম অভিজ্ঞ ডাক্তার ছাড়া কেবল মাত্র একজন নার্সের সাহায্যে। এতে ডেলেভারীতে প্রসূতির নবজাতক শিশুটি আঘাতপ্রাপ্ত হলে তড়িঘড়ি করে তাদেরকে মোস্তাফিজ সেন্টারে পাঠানো হয়। সেখান থেকে মাতুইয়াল হাসপাতালে নিয়ে গেলে শিশুটি মারা যায়।

এদিকে ওই ঘটনার পর এ নিয়ে একটি দালাল চক্র মাঠে নামে। মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা চালায়। কিন্তু গণমাধ্যমে এ নিয়ে সংবাদ প্রকাশ হলেও তা নজরে আসে সিভিল সার্জনের। পরে বুধবার দুপুরের দিকি সিভিল সার্জন ডা. মো. ইমতিয়াজ আহমেদেও নেতৃত্বে ওই ফার্মেসীতে অভিযান চালানো হয়। অভিযানে সিভিল সার্জন ওই ফার্মেসীর সকল কার্যক্রম অবৈধ ঘোষণা করে তা বন্ধের নির্দেশ দেন।

এর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা সিভিল সার্জন ডা. মো. ইমতিয়াজ আহমেদ।

মুসলিম নগর এলাকার জনপ্রিয় ফার্মেসীটির মালিক ফার্মাসিস্ট আব্দুর রহিম। এই ফার্মেসীতে দীর্ঘদিন ধরেই প্রসূতিদের ডেলেভারী করা হচ্ছিলো। এলাকার একটি প্রভাবশালী চক্র সম্প্রতি ঘটে যাওয়া ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে রহিমের পক্ষ অবলম্বন করেন। শোনা গেছে, তিন লাখ টাকার বিনিময়ে ঘটনাটি মিমাংসার জন্য দৌঁড়ঝাপ করেছিলেন ছাত্রলীগ নেতা আব্দুল মান্নান।

অভিযানকালে সিভিল সার্জনের সাথে আরও উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মো জাহিদুল ইসলাম, জেলা ড্রাগ সুপার ইকবাল হোসেন, জেলা হেলথ সুপার স্বপন দেবনাথ প্রমূখ।

২৩ অক্টোবর,২০১৯/এমএ/এনটি

উপরে