NarayanganjToday

শিরোনাম

২৪ ঘণ্টায়ও উদ্ধার হয়নি আটকে পড়া শিশু, মায়ের আহাজারি


২৪ ঘণ্টায়ও উদ্ধার হয়নি আটকে পড়া শিশু, মায়ের আহাজারি

শহরের এক নম্বর বাবুরাইলে চার তলা ভবন ধ্বসের ঘটনার ২৪ ঘণ্টা পেরিয়ে গেলেও আটকে পড়া স্কুল ছাত্র ইফতেখার আহমেদ ওয়াজিদকে এখনও উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। তাকে উদ্ধারে নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের কর্মীরা অভিযান চালাচ্ছে।

৩ নভেম্বর বিকেল চারটার দিকে এক নম্বর বাবুলাইল মুন্সিবাড়ি এলাকার এমএইচ ম্যানশন নামের চার তলা ওই ভবনটি একদিকে কাৎ হয়ে খালের উপর ধ্বসে পড়ে। এ ঘটনায় এক শিশু নিহত ও তিনজন আহত হয়েছে।

ওইদিন দুপুরের খাবার শেষে ওই ভবনের নিচ তলার ফ্ল্যাটে আরবি পড়ে গিয়েছিলো ওয়াজিদ। এরপর ধ্বসে পড়ে ভবনটি। এ ঘটনায় ওয়াজিদের খালাতো ভাই শোয়েবকে উদ্ধার করে হাসপাতাল নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। তবে, সন্ধান পাওয়া যায়নি ওয়াজিদের। ধারণা করা হচ্ছে শিশুটি ধ্বসে পড়া ভবনটির ভেতরেই আটকা পড়েছে।

এদিকে ভবন ধ্বসের ২০ ঘণ্টা পেরিয়ে গেলেও ওয়াজিদকে উদ্ধার করা সম্ভব না হওয়াতে সে জীবিত আছে কিনা এ নিয়ে সৃষ্টি হয়েছে ধোঁয়াশা। তার পরিবারে চলছে শোকের মাতম।

নিখোঁজ ইফতেখার আহমেদ ওয়াজিদ (১২) এক নং বাবুলাইল এলাকার মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম রুবেলের ছেলে। এবং বেপারি পাড়া এলাকার সানরাইজ স্কুলের ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী।

এদিকে ভবনটিকে ঘিরে এখনও রয়েছে উৎসুক মানুষের ভিড়। ঘটনাস্থলে নিখোঁজ ওয়াজিদের মা-বাবাসহ অন্যান্য আত্মীয় স্বজনও রয়েছে। ওয়াজিদের বাবা-মায়ের আত্মচিৎকারে ঘটনাস্থলে গুমোট পরিবেশ সৃষ্টি হয়। তাদের আহাজারিতে পুরো পরিবেশ ভারি হয়ে উঠে।

ওয়াজিদের মা চিৎকার করতে করতে বারবারই বলছিলেন, ‘আমার পোলারে বের করে দ্যান, ওর নিঃশ্বাস নিতে কষ্ট হইতাছে, ওরে বাইর কইরা দ্যান, আপনাগো আল্লাহর দোহায় লাগে...।’ তিনি বারবার ছেলের জন্য আহাজারি করতে করতে মূর্ছা যাচ্ছিলেন।

এদিকে নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের কর্মীরা প্রাণপন চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন নিখোঁজ থাকা শিশুটির সন্ধান পেতে। তারা শিশুটির সন্ধানে ধ্বসে পড়া ভবনে অভিযান চালাচ্ছে।

৪ নভেম্বর, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে