NarayanganjToday

শিরোনাম

ঢাকায় জামদানি উৎসবের উদ্বোধন করলেন দিপু মণি ও আইভী


ঢাকায় জামদানি উৎসবের উদ্বোধন করলেন দিপু মণি ও আইভী

বাংলার ঐতিহ্যের এই জামদানি নিয়ে ধানমন্ডির বেঙ্গল শিল্পালয় ‘ঐতিহ্যের বিনির্মাণ’ শীর্ষক পাঁচ সপ্তাহব্যাপী জামদানি উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে। বাংলাদেশ জাতীয় কারুশিল্প পরিষদ ও বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের যৌথ উদ্যোগে এ উৎসবের আয়োজন করেছে। ১২ অক্টোবর পর্যন্ত চলবে এ উৎসব।

৬ সেপ্টেম্বর প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে উৎসবের উদ্বোধন করেন শিক্ষামন্ত্রী ড. দীপু মনি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী এবং ওয়ার্ল্ড ক্রাফটস কাউন্সিল এশিয়া প্যাসিফিক রিজিয়নের প্রেসিডেন্ট গাদা হিজাউয়ি-কাদুমি।

সেলিনা হায়াৎ আইভি বলেন, এই শিল্পের শহরের বাসিন্দা হতে পেরে আমি আজ গর্ববোধ করছি। সারা বিশ্বের কাছে পৌঁছে দিতে হবে এই শিল্পকে। আমি অনুরোধ করি বাংলাদেশ সরকারের কাছে, যাতে জামদানি শিল্প ও এর কারিগরদের পৃষ্ঠপোষকতায় কোনও কমতি না থাকে।

দীপু মনি বলেন, আমাদের সমৃদ্ধ ইতিহাসের কথা বলে এই জামদানি। জামদানির কথা বলতে গেলে শীতলক্ষ্যা ও মেঘনা নদীর ইতিহাসও উঠে আসে। জামদানি শিল্পের সঙ্গে সঙ্গে আমাদের এসব নদীকেও বাঁচিয়ে রাখতে হবে। অতীত যাতে আমরা ভুলে না যাই সেজন্য এই শিল্পকর্মগুলোর প্রদর্শনীতে আমাদের সবার আসা উচিত।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ কারুশিল্প পরিষদের সভাপতি মো. রফিকুল ইসলাম। আরো উপস্থিত ছিলেন জামদানি উৎসবের কিউরেটর চন্দ্র শেখর সাহা ও বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক লুভা নাহিদ চৌধুরী। অনুষ্ঠানের শুরুতে অতিথিদের উত্তরীয় পরিয়ে বরণ করে নেয়া হয়।

এরপর পাঁচজন শ্রেষ্ঠ জামদানি বয়নশিল্পী ও তাদের সহকারিদেও ‘শ্রেষ্ঠ কারুশিল্পী পুরস্কার’ প্রদান করা হয়।

পুরস্কারপ্রাপ্তরা হলেন ওস্তাদ মো. সজিব হোসেন ও তার সহকারি মো. আনোয়ার হোসেন, মো. মোতালিব ও সহকারি নুর আলম, মো. মুনির ও সহকারি আবু বকর, ওস্তাদ মো. সিদ্দিক ও সহকারি মাক্সুদা এবং মো. জামাল ও সহকারি শাকিল।

উৎসবে প্রদর্শনীর জন্য আনা হয়েছে জামদানি কারিগরদের উত্তরাধিকারদের মাধ্যমে নতুন করে তৈরি জামদানি শাড়ির মধ্যে ৩০টি শাড়ি। এক্ষেত্রে ঐহিত্যবাহী জামদানি সংগ্রহ করে, আদি মানসম্মত সুতা সরবরাহ, মোটিফ অনুসারে কাজ করা হয়েছে। প্রদর্শনীর জন্য এভাবে তৈরি ৮০টি শাড়ির জন্য সময় লেগেছে ৬৪০ সপ্তাহ। এসব শাড়ি তৈরিতে ৪৫ জন ওস্তাদ তাঁতী ও ৫৬ জন সাগরেদ তাঁতী কাজ করেছেন।

এই পুরো আয়োজনে এদেশের জামদানীর একটি ঐতিহাসিক রূপরেখা ফুটে উঠবে। প্রদর্শনীতে থাকেবে জামদানী বুননের উপকরণ, ডিজাইন ও সেগুলোর ইতিহাস, বুনন প্রক্রিয়াসহ নানা দিক। একই প্রদর্শনীতে স্থান পেয়েছে বিভিন্ন সময়ে সংগৃহীত পুরনো জামদানী কাপড়ও।

প্রদর্শিত হয়েছে বয়নশিল্প ও বয়নশিল্পীদের জীবন ও কর্ম নিয়ে স্বল্পদৈর্ঘ্য তথ্যচিত্র। উৎসব চলাকালে আগামী ৭ সেপ্টেম্বর লন্ডনের ভিক্টোরিয়া এন্ড অ্যালবার্ট মিউজিয়ামসহ দেশি-বিদেশি বিশেষজ্ঞদের নিয়ে অনুষ্ঠিত হবে আন্তর্জাতিক সেমিনার।

সকলের জন্য উন্মুক্ত এ প্রদর্শনী ১২ অক্টোবর পর্যন্ত চলবে। প্রতিদিন দুপুর ১২টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। তবে রোববার থাকবে সাপ্তাহিক ছুটি।

৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে