NarayanganjToday

শিরোনাম

‘পিরিয়ড প্রকৃতির নিয়ম, এতে লজ্জার কী আছে?’


‘পিরিয়ড প্রকৃতির নিয়ম, এতে লজ্জার কী আছে?’

‘পিরিয়ড প্রকৃতির নিয়ম, এতে লজ্জার কী আছে?’ এমনি মন্তব্য করেছেন ভারতীয় বাংলা সিরিয়ালের জনপ্রিয় অভিনেত্রী অপরাজিতা আঢ্য।

সোমবার মেনস্ট্রুয়াল হাইজিন দিবস। এই দিবসে গণমাধ্যমের সঙ্গে পিরিয়ডের বিভিন্ন বিষয় আলোচনা করেছেন তিনি।

অপরাজিতা আঢ্য বলেন, ‘আমি নিজে ২০০ শতাংশ হাইজিন মেনে চলি। আমি চাই, সব মেয়েরাই এটুকু মেনে চলুক। কিন্তু এখনও আমাদের অনেকের মধ্যেই সচেতনতার অভাব রয়েছে।’

জনপ্রিয় অভিনেত্রী বলেন, ‘যখন ছোট ছিলাম, মায়েরা যে পদ্ধতি বলে দিতেন আমরা সেটা মেনে চলতাম। ভাবতাম, এটা একটা লজ্জার বিষয়। ঘরের কাপড়ই ধুয়ে ব্যবহার করতাম। সেটা আবার এমন জায়গায় রাখতে হত যাতে পুরুষদের চোখে না পড়ে। কিন্তু এটা তো প্রকৃতির নিয়ম। এতে লজ্জার কী আছে?’

তিনি বলেন, ‘যখন থেকে বুঝেছি পিরিয়ডে কাপড় ব্যবহার করলে ইনফেকশন হতে পারে, নানা রকম রোগ হতে পারে, তখন থেকে সচেতন হয়েছি। ন্যাপকিন ব্যবহার করেছি। কিন্তু এখনও অনেকে দোকানে গিয়ে ন্যাপকিন চাইতে লজ্জা পান। গ্রামে তো বটেই, শহরেও কিন্তু এই সংখ্যাটা খুব একটা কম নয়। এর ফলেই বহু রোগ হচ্ছে মেয়েদের। আমার কথা হল, এই রোগ হওয়ার পরিস্থিতিতে বিষয়টা যাবে কেন?’

তিনি আরো বলেন, ‘অনেক মেয়েই অনেকক্ষণ ধরে একটাই ন্যাপকিন ব্যবহার করেন। ধরুন, আমাদের প্রফেশনে যারা আছেন, তাদের হয়তো শট চলছে, টয়লেটে যেতে পারবেন না। আবার স্কুল পড়ুয়ারাও হয়তো বাধ্য হয়ে এটা করছে। বা অনেক মহিলাকে পেশার তাগিদে সারাদিন হয়তো রাস্তায় ঘুরতে হয়। তাদেরও এই সমস্যা হয়। আমাকে চিকিত্সক বলেছিলেন, এটা খুব খারাপ। একেবারেই করা উচিত নয়। যে পরিস্থিতিই হোক না কেন, নির্দিষ্ট সময় অন্তর ন্যাপকিন চেঞ্জ করাটা জরুরি।

২৮ মে, ২০১৮/এসপি/এনটি

উপরে