NarayanganjToday

শিরোনাম

শুভ জন্মদিন জয়া আহসান


শুভ জন্মদিন জয়া আহসান

মডেল হিসেবে যাত্রা শুরু করেছিলেন। সেখানে বাজিমাত করে নাম লিখিয়েছিলেন নাটক-টেলিছবির অভিনয়ে। এরপর আসেন সিনেমায়। পরের গল্পটা কেবলই সাফল্যের। একের এক পর তিনি চমক দেখিয়েছেন বৈচিত্রময় চরিত্রে। ঢাকার পাশাপাশি তার অভিনয়ের মায়ায় বাঁধা পড়েছে কলকাতার সিনেমার দর্শকও।

আজ সেই প্রিয়মুখের জন্মদিন। জীবনের সুন্দর এই দিনটিতে বন্ধু-সহকর্মীদের শুভেচ্ছায় ভাসছেন জয়া আহসান। জয়াকে নিয়ে নির্মাতা অনিমেষ আইচ ফেসবুকে লিখেছেন, ‘জন্মদিনে অনেক শুভেচ্ছা নিও। পরসমাচার এই যে, দীর্ঘদিন যাবত তোমার সহিত কোনরুপ সাক্ষাত হইতেছে না, যদিও ফোনে বেশ কয়েকবার কথা হইয়াছে। যাহা হউক শুভ জন্মদিন। আজ রাতে বাংলাদেশে ফিরছি, আশা করি দুয়েকদিনের মধ্যে দেখা হবে। তোমার সর্বাঙ্গীন সাফল্য কামনা করি।’

অমিতাভ রেজা শাকিব খানের সঙ্গে জয়ার একটি ছবি পোস্ট করে লিখেছেন, ‘শুভ জন্মদিন জয়া আহসান। তোমার সাথে আমার ছবি নাই তাই ভাই এর সাথে দিলাম।’

নতুন প্রজন্মের অভিনেত্রী আশনা হাবিব ভাবনা ফেসবুকে লিখেছেন, ‘শুভ জন্মদিন। তোমার অভিনয়ের কথা আমার বলার কিছু নেই, তুমি বেস্ট। কিন্তু আমার কাছে মানুষ হিসেবে অসাধারন, আমার সিনেমা রিলিজের পর তুমি আমাকে ফোন করে যে কথাগুলো বলেছ, আমার সবসময় মনে থাকবে। তুমি যদি দূরেও থাকো জানি বিপদে তোমাকে পাশে পাব, এই বিশ্বাসই অনেক আপু। তুমি আমাকে আদর করো তা আমি টের পাই। আর আমি তোমাকে ভালবাসি অনেক। তোমার আমার একটা অতি গুরুত্বপূর্ণ মিল আছে, আমাদের দুজনের আম্মুর নাম রেহানা।’

আরেক অভিনেত্রী শবনম ফারিয়া লিখেছেন, ‘শুভ জন্মদিন দেবী! শুভ জন্মদিন জয়া আপু!’

এছাড়াও বাংলাদেশ ও ভারতের অনেক শিল্পীরাই জয়াকে অভিনন্দিত করেছেন তার জীবনের নতুন বছরের শুরুতে।

জয়া আহসান প্রথম বাংলাদেশি ‘ফিল্ম ফেয়ার অ্যাওয়ার্ড’ পাওয়া অভিনেত্রী। তিনি দেশের হয়েও জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার জয় করেছেন। জয়া আহসান প্রথম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন ২০১১ সালে নাসির উদ্দিন ইউসুফ পরিচালিত ‘গেরিলা’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য। একই বছরে তিনি ‘৪০-তম বাচসাস ফিল্ম অ্যাওয়ার্ড’ অনুষ্ঠানে শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী’র পুরস্কার লাভ করেন ‘গেরিলা’তে অভিনয়ের জন্যই।

এরপর তিনি রেদওয়ান রনির ‘চোরাবালি’ এবং অনিমেষ আইচের ‘জিরো ডিগ্রী’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য আবারো জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ভূষিত হন।

বাংলাদেশে তার মুক্তিপ্রাপ্ত সর্বশেষ চলচ্চিত্র সাইফুল ইসলাম মান্নু পরিচালিত ‘পুত্র’ চলচ্চিত্রটি। এতে তার বিপরীতে ছিলেন ফেরদৌস। জয়া আহসান এরইমধ্যে প্রায় শেষ করেছেন বাংলাদেশের চলচ্চিত্র নূরুল আলম আতিকের ‘লাল মোরগের ঝুটি’, ‘পেয়ারার সুবাস’ ও মাহমুদ দিদারের ‘বিউটি সার্কাস’। এই মুহুর্তে মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে তার অভিনীত অনম বিশ্বাস পরিচালিত চলচ্চিত্র ‘দেবী’ চলচ্চিত্রটি। এটি আগামী সেপ্টেম্বর মাসে মুক্তি দেয়ার পরিকল্পনা চলছে। এই চলচ্চিত্রে জয়া আহসান অভিনয় করেছেন রানু চরিত্রে এবং মিসির আলী চরিত্রে অভিনয় করেছেন চঞ্চল চৌধুরী।

আর গেলো সপ্তাহে কলকাতার নন্দনে চারদিন’ব্যাপী অনুষ্ঠিত হওয়া ‘বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উৎসব’এ প্রদর্শিত হয়েছে জয়া অভিনীত আকরাম খান পরিচালিত ‘খাঁচা’ চলচ্চিত্রটি। যথারীতি এই চলচ্চিত্র প্রদর্শনের সময় উপস্থিত দর্শক তার অভিনয়ের প্রশংসা করেছেন।

এদিকে জয়া আহসান অভিনীত কলকাতায় সর্বশেষ মুক্তিপ্রাপ্ত চলচ্চিত্র মনোজ মিশিগান পরিচালিত ‘আমি জয় চ্যাটার্জি’। এছাড়া তার অভিনীত ও সৃজিত মৃুখার্জি পরিচালিত ‘এক যে ছিলো রাজা’ ছবিটি আসছে দুর্গা পূজায় কলকাতায় মুক্তি পাবে। এতে তার সহশিল্পী হিসেবে আছেন অপর্ণা সেন, অঞ্জন দত্ত, যীশু সেনগুপ্ত।

১ জুলাই, ২০১৮/এসপি/এনটি

উপরে