NarayanganjToday

শিরোনাম

চীনের বন্দিশিবিরে মুসলিম নির্যাতন বন্ধের আহ্বান তুরস্কের


চীনের বন্দিশিবিরে মুসলিম নির্যাতন বন্ধের আহ্বান তুরস্কের

সংখ্যালঘু উইঘুর মুসলিম সম্প্রদায়ের একজন সংগীত শিল্পী চীনের বন্দিশিবিরে আটক অবস্থায় মৃত্যুর খবর প্রকাশিত হয়েছে। এ ঘটনায় উদ্বেগ জানিয়েছে বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠন ও মুসলিম রাষ্ট্র। তুরস্ক চীনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে দেশটির বিভিন্ন বন্দিশিবিরের মুসলিম নির্যাতন বন্ধ করার জন্য। খবর বিবিসির।

চীন আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকার না করলেও জানা যায় উইঘুর সম্প্রদায়ের জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী আবদুরেহিম হেয়িতে বন্দিশিবিরে আটক অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেছেন। একটি গানের জন্য চীন সরকারের ক্ষোভের বশবর্তী হন তিনি। আবদুরেহিমকে আট বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছিল।

শনিবার (৯ ফেব্রুয়ারি) তুরস্কের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় উদ্বেগ জানিয়ে বলেছে, আবদুরেহিম বন্দিশিবিরে নির্যাতন ভোগ করেছেন।

বিবৃতিতে মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র হামি আকসোয়ি বলেন, এটা আর গোপন কিছু নয় যে, চীনে লাখ লাখ উইঘুরকে নির্বিচারে গ্রেফতার, ক্যাম্পে আটকে রাখা ও মোগজ ধোলাই করা হয়। বন্দিদের সবসময় চাপে রাখা হয়। ২১ শতকে এমন ঘটনা মানবতার জন্য লজ্জাজনক।

উল্লেখ্য, চীনের জিনজিয়াং প্রদেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের প্রায় ৯০ লাখ সংখ্যালঘু উইঘুর মুসলিমের বাস। চীনা কর্তৃপক্ষ এই অঞ্চলের মুসলিমদের ওপর নিষ্পেষণ চালায় বলে অভিযোগ রয়েছে।

এছাড়া,  ইসলাম ধর্ম পালন করা চীনের অনেক অংশেই নিষিদ্ধ। নামাজ পড়া, রোজা, দাঁড়ি রাখা, হিজাব পরাসহ ধর্মীয় জীবনাচরণ জন্য অনেককে গ্রেফতারের নজির রয়েছে। কমিউনিস্ট চীন আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে ইসলামকে সমাজতন্ত্রের সঙ্গে সমন্বয় করে যুগোপযোগী করতে আইন জারি করবে বলে জানা যায়।

জাতিসংঘের মতে, ১০ লাখের বেশি উইঘুর মুসলিমকে ক্যাম্পে বন্দি রেখে ধর্ম থেকে দূরে রাখার পরিকল্পনা করেছে সৃষ্টিকর্তায় অবিশ্বাসী চীনের শাসক কমিউনিস্ট পার্টি।

১০ ফেব্রুয়ারী,২০১৯/এমএ/এনটি

উপরে