NarayanganjToday

শিরোনাম

‘খালেদা জিয়া নির্বাচন করতে পারবেন কি না তা আদালতই সিদ্ধান্ত দিবেন’


‘খালেদা জিয়া নির্বাচন করতে পারবেন কি না তা আদালতই সিদ্ধান্ত দিবেন’

‘বাংলাদেশে রাজনৈতিক কোনা সমস্যা নেই’ দাবি করে আইনমন্ত্রী অ্যাড. আনিসুল হক বলেছেন, “সাংবিধানিকভাবে চলছে বাংলাদেশ। সংবিধানের ব্যত্যয় ঘটিয়ে বর্তমান সরকার কোনো কিছুই করেনি, সংবিধানের ধারাবাহিকতায় সংবিধান সম্মত যা, তাই করা হচ্ছে।”

মঙ্গলবার (৩০ অক্টোবর) দুপুরে ফতুল্লার কায়েমপুর এলাকায় জেলা রেজিস্ট্রেশন কমপ্লেক্সের নবনির্মিত ৪ তলা ভবনের উদ্বোধনি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যের পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি ওই কথা বলেন।

‘জাতীয় ঐক্য ফ্রন্টের সাথে সংলাপের ব্যাপারে কোনো চাপ ছিলো না’ উল্লেখ করে আনিসুল হক বলেন, “গণতন্ত্রের ধারাবাহিকতার জন্য তাদের সাথে সংলাপের ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর ইতিবাচক সিদ্ধান্ত দিয়েছেন। বিদেশের কোনো চাপে নত হবার মত মানুষ তিনি নন।”

খালেদা জিয়া নির্বাচন করতে পারবেন কি-না, এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, সংবিধানে বলা আছে, “কোনো ব্যক্তি যদি নৈতিক স্থুলনের জন্য কারাদণ্ডে দণ্ডিত হন এবং তাকে যদি আদালত দুই বছর অথবা তারও অধিক সাজা প্রদান করেন, তাহলে তিনি সাজা খাটার আরও ৫ বছর পর্যন্ত নির্বাচন করতে পারবেন না এমপি হিসেবে।”

তবে মন্ত্রী একই প্রসঙ্গে আরও জানান, “সুপ্রিম কোর্ট অব বাংলাদেশে দুটো রায় আছে, সেই রায় দুটোর একটায় বলা আছে, উচ্চ আদালতে আপিলে যদি তার সাজাটা স্থগীত রাখেন, তাহলে সে নির্বাচন করতে পারবেন। আরেকটা রায়ে বলা আছে, যেটা বিভিক্ত রায়, সেটায় বলা আছে যে, একজন বিচারপতি বলেছেন পারবেন আরেকজন বিচারপতি বলেছেন পারবেন না। আমাদের সকল আইনের ঊর্ধ্বে হচ্ছে সংবিধান। সংবিধানে যেহেতু এটা বলেছে, আমার মনে হয় এটা আদালতই সিদ্ধান্ত দিবেন যে, তিনি নির্বাচন করতে পারবেন কী পারবেন না।”

এ সময় তার সাথে ছিলেন নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মো. রাব্বী মিয়া এবং অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মনিরুল ইসলামসহ অন্যান্যরা।

৩০ অক্টোবর, ২০১৮/এসপি/এনটি

উপরে