NarayanganjToday

শিরোনাম

পালিয়েছে ধানের শীষ প্রার্থী কাসেমী, নিজের ভোট দিতেও আসেননি


পালিয়েছে ধানের শীষ প্রার্থী কাসেমী, নিজের ভোট দিতেও আসেননি

নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনের ধানের শীষ প্রার্থী মনির হোসাইন কাসেমী নিজেরে ভোটাধিকারও প্রয়োগ করেননি। তিনি নির্বাচনের তিনদিন আগেই অসুস্থতার ভান ধরে এলাকা ছেড়ে পালিয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির নেতাকর্মীরা।

এদিকে এই আসনের ১৫৫টি কেন্দ্রের মধ্যে একটি কেন্দ্রেও ছিলো না ধানের শীষ প্রতীকের পোলিং এজেন্ট। নির্বাচনের একদিন আগের থেকে এই আসনের প্রার্থী কাসেমী দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে সকল ধরণের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছেন বলে দলটির একাধিক সূত্র জানিয়েছে।

সূত্র জানায়, কাসেমীর নিজরে কেন্দ্র মুসলিম নগরেও ছিলো না পোলিং এজেন্ট। একইভাবে অন্যান্য কেন্দ্রগুলোতেও দেখা গেছে একই চিত্র। কোথাও কোনো পোলিং এজেন্ট ছিলো না। ভোটের পুরোদিন শেষ হলেও এলাকায় তাকে দেখা যায়নি। এমনকি নিজের ভোটটাও তিনি দিতে আসেননি।

জেলা বিএনপির সহসাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল আমিন সিকদার জানান, ২৯ ডিসেম্বর ১২ টার দিকে মনির হোসাইন কাসেমী তার মুসলিমনগর বাড়িতে বিএনপির নেতাকর্মীদের থাকার জন্য বলেন। এদিন দলের নেতাকর্মীরা পোলিং এজেন্ট ঠিক করে, ছবিসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে তার বাড়িতে যান। কিন্তু দুপুর দুইটা বেজে গেলেও কাসেমী আসেননি। এমনকি কারো ফোনই তিনি আর ধরেননি। এ অবস্থায় প্রার্থী স্বাক্ষর ছাড়া আমরা কোনো পোলিং এজেন্ট দিতে পারিনি।

প্রসঙ্গত, নানা নাটকের পর নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের হেভিওয়েট প্রার্থী গিয়াস উদ্দিন ও শাহ আলমকে উপেক্ষা করে অচেনা-অজানা মনির হোসাইন কাসেমীর হাতে তুলে দেওয়া হয় ধানের শীষ। তিনি বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের শরীক জমিয়তে উলায়েম ইসলামের নারায়ণগঞ্জ জেলা সভাপতি।

কাসেমীকে প্রার্থী করায় বিএনপির মধ্যে শুরু থেকেই তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছিলো। অনেকেই অনেক অভিযোগ তুলেছেন তার দিকে। সবার একটাই মন্তব্য ছিলো, কাসেমী শামীম ওসমানের ড্যামী প্রার্থী হিসেবে এই আসনে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে দাঁড়িয়েছেন।

এদিকে নির্বাচনের মাত্র তিনদিন আগে ঢাকার ল্যাবএইড হসপিটালে গিয়ে অসুস্থতার ভান ধরে ভর্তি হন মনির হোসাইন। তখনই বলা হচ্ছিলো, কৌশলে তিনি মাঠ ছেড়ে পালিয়েছেন। যদিও কাসেমীর পিএস দাবিদার আনোয়ার হোসেন এমন দাবি অস্বীকার করেছেন। জানিয়েছিলেন মাঠ ছাড়ার প্রশ্নই ওঠে না। তবে, শষতক ভোটের দিন নিজের ভোটটিও দিতে আসেননি কাসেমী।

৩০ ডিসেম্বর, ২০১৮/এসপি/এনটি

উপরে