NarayanganjToday

শিরোনাম

প্রতিপক্ষ প্যানেলের সুতা কিন্তু আইনজীবিদের মধ্যে নাই : সাখাওয়াত


প্রতিপক্ষ প্যানেলের সুতা কিন্তু আইনজীবিদের মধ্যে নাই : সাখাওয়াত

গত ত্রিশ তালিখে সারা বাংলাদেশে যে নির্বাচন হয়েছে সে নির্বাচনে এই দেশের অধিকাংশ মানুষ ভোট কেন্দ্রে যেতে পারে নাই, ভোট দিতে পারে নাই। এ কারণে অইনজীবিদের মাঝে সন্দেহের সৃষ্টি হয়েছে সরকারি দল যে প্যানেল দিয়েছে তারা অতিউৎসাহি কিছু কার্যক্রম করছে যার কারণে আইনজীবিদের মাঝে এমন একটি পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়ে যে আমরা ভোট দিতে পারবো কিনা।

মঙ্গলবার (২২ জানুয়ারি) দুপুরের দিকে নারায়ণগঞ্জ আদালতপাড়ার উল্টো দিকে হিমালয় চাইনিজ রেস্টুরেন্টে বিএনপি পন্থী জাতীয়তাবাদী আইনজীবি ঐক্যফ্রন্ট মনোনীত সরকার হুময়ূন কবির ও জাকির পরিষদ প্যানেল পরিচিতি সভায় বক্তব্যকালে অ্যাড. সাখাওয়াত হোসেন খান ওই কথা বলেন।

তিনি বলেন, যেভাবে এই সরকার মানুষের ভোটের অধিকার নষ্ট করে দিয়েছে, সেই একইভাবে আইনজীবি সমিতির নির্বাচনও কষ্ট করবে বলে আমি বিশ্বাস করি না। নারায়ণগঞ্জে যারা সরকারি দলের নীতি নির্ধারক রয়েছেন, তাদের প্রতি আমার অনুরোধ রইলো, আপনারা আইনজীবিদের ভোট দিতে দেন।

সরকারি দলের নীতি নির্ধারণীদের প্রতি অনুরোধ রেখে অ্যাড. সাখাওয়াত হোসেন খান বলেন, আপনারা যাকে আপনারা আপনাদের প্যানেলের প্রধান প্রার্থী বানিয়েছেন তিনি তিন ট্রাম ধরে আইনজীবি সমিতির নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন। উনি যদি অনেক কাজই করে থাকে তাহলে আইনজীবিদের ভোটের মাধ্যমেই পরীক্ষা নেন। তিনি তিনবছর আইনজীবিদের পক্ষে ছিলেন কিনা, কাজ করেছিলেন কিনা সেটা নিরপেক্ষভাবে পরীক্ষা নেন। তাহলেই বোঝা যাবে।

তিনি বলেন, আইনজীবি সমিতি শূন্য। আইনজীবিদের বসার জায়গা নাই। আমি ওইদিন বলেছিলাম, আইনজীবি সমিতি যেভাবে ধুলাবালিতে রাখা হয়েছে, আজকে তা দেখলে মনে হয় এই বিচারাঙ্গন বস্তিতে পরিণিত হয়েছে। ইতোপূর্বে আইনজীবিদের সুখে দুঃখে কারা ছিলো সেটার মূল্যায়ন আপনাদের করতে হবে।

সরকার হুমায়ূন ও জাকির প্যানেলকে আইনজীবিদের প্যানেল উল্লেখ করে সাখাওয়াত আরও বলেন, আইনজীবিদের মধ্য থেকেই এই প্যানেল দেওয়া হয়েছে। কিন্তু আমাদের প্রতিপক্ষ প্যানেলের সুতা কিন্তু আইনজীবিদের মধ্যে নাই। তার সুতা কিন্তু অন্য জায়গায়। সুতরাং আগামী ২৪ জানুয়ারি যে নির্বাচন সে নির্বাচনে আইনজীবিদের সাহসিকতার পরিচয় দিতে হবে।

উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অ্যাড. তৈমূর আলম খন্দকার, অ্যাড.আব্দুল হামিদ ভাসানী, অ্যাড. বারী ভূইয়া, অ্যাড. জাকির হোসেন, সরকার হুমায়ূন কবির, অ্যাড. কামরুন্নাহার সহ বিএনপির সিনিয়র আইজীবীগণ।

২২ জানুয়ারি, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে