NarayanganjToday

শিরোনাম

‘মাঠে নামলেই ছাত্রলীগ, পুলিশ হামলা চালায় মামলা করে’


‘মাঠে নামলেই ছাত্রলীগ, পুলিশ হামলা চালায় মামলা করে’

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের ছাত্র সংগঠন ছাড়া অন্য কোনো সংগঠন রাজপথে কোনো দাবি আদায় নিয়ে দাঁড়াতে পারে না। ফলে ক্ষমতার বাইরে থাকা বিএনপির অন্যতম সহযোগি সংগঠন ছাত্রদল কোনো ভাবেই কোনো ইস্যুতে রাজপথে নামতে পারছে না বলে দাবি করেছেন এই সংগঠনটির নারায়ণগঞ্জ জেলার সাবেক ও বর্তমান নেতৃবৃন্দ।

তাদের দাবি, তারা তারা রাজপথে নামলেই হয়তো ছাত্রলীগ নয়তো পুলিশ তাদের পিছনে লাগে, হামলা করে। আর মামলা তো বোনাস হিসেবে কিছু করলেও আসে না করলেও আসে। ফলে, প্রকাশ্যে ছাত্র স্বার্থ জড়িত কোনো ইস্যু নিয়ে তারা মাঠে নামতে পারছে না। তবে, নেপথ্যে থেকে যতটা সম্ভবত ছাত্র স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন।

নারায়ণগঞ্জ ছাত্র দলের সাবেক সভাপতি ও তোলারাম কলেজের সাবেক ভিপি মাসুকুল ইসলাম রাজীব বলেন, ’বাংলাদেশের সব দলের সাংগঠনিক কার্যক্রমেই ছাত্র রাজনীতি নিয়ে রয়েছে আলাদা মতামত। আর ছাত্রদের নিয়ে সরকারের তো এলার্জি রয়েছেই। তবে গণতান্ত্রিক অধিকার আদায়ে বর্তমান ছাত্রদল সরাসরি অংশগ্রহন করতে না পারলেও সহযোগিতার হাতটি ঠিকি বাড়িয়ে দিচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতির হিসেব করতে গেলে আমি এটাই বলবো, একমাত্র বিএনপি ও এর সহযোগি সংগঠনগুলো ছাড়া বাকি সব দলগুলোই রাস্তায় দাঁড়িয়ে তাদের দলীয় কর্মসূচি পালন করতে পারে। ফলসূতিতে বর্তমান সরকারের আমলে ছাত্রদের অধিকার আদায়ে প্রকাশ্যে অংশগ্রহন কম করে।’

নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের বর্তমান সভাপতি মশিউর রহমান রনি বলেন, ‘আসলে ছাত্র আন্দোলনের সাথে আমরা সম্পৃক্ত না এটা সম্পুর্ন মিথ্যা। যদিও ছাত্রদের সব আন্দোলনে আমরা দৃশ্যমান না তারপরও ন্যায দাবি আদায়ের ক্ষেত্রে ছাত্রদল সবসময় একাত্মতা প্রকাশ করে। তাছাড়া, আমরা যারা নেতৃত্ব দিচ্ছি তারা সবাই প্রকাশ্যে থাকতে পারি না এর মূল কারন হলো ছাত্রলীগ ও পুলিশ আমাদের দেখলেই হামলা ও মামলা করে। তাই আমরা প্রকাশ্যে না থেকে ছাত্রদলের নেতাকর্মীদেরকে পাঠাই।’

জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মশিউর রহমান শান্ত বলেন, ‘আমরা ছাত্র রাজনীতি করি সাধারণ ছাত্র ছাত্রীদের ন্যায দাবিগুলো আদায়ের জন্য। আর সেই ন্যায দাবির পক্ষে সব সময় জেলা ছাত্রদল একাত্মতা প্রকাশ করে। তবে, হ্যা আমরা প্রকাশে থাকতে পারি না কারন একটাই আমাদের দেখলে ক্ষমতাসীনদের গা জ্বালা ধরে।’

তিনি বলেন, ‘ক্ষমতাসীনরা আমাদের পিছনে ছাত্রলীগের ক্যাডার সহ প্রশাসনকে লেলিয়ে দেয়। ফলে আমার মিথ্যা মামলা হামলার শিকার হতে হয়। সাধারণ ছাত্র ছাত্রীরাও তাদের হয়রানির শিকার হয়। সেই কারনে আমরা দায়িত্বরত ছাত্রদলের নেতা না গিয়ে তৃনমূল ছাত্রদের পাঠাই। শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের সৈনিকরা কখনই কোনো কাজে পিছ পা হয় না। হয়তোবা সময়ের প্রয়োজনে একটু থমকে দাড়ায়।’

১৮ মার্চ, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে