NarayanganjToday

শিরোনাম

অনেকেই বিএনপি থেকে এসে আ.লীগ নেতা হয়ে গেছেন : উজ্জল


অনেকেই বিএনপি থেকে এসে আ.লীগ নেতা হয়ে গেছেন : উজ্জল

মহানগর যুবলীগের সাধারন সম্পাদক আহাম্মদ আলী রেজা উজ্জল বলেছেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যা করার পর আওয়ামী লীগকে ধ্বংস করার জন্য আজও সেই ষড়যন্ত্র চলছে, এ ষড়যন্ত্র অব্যাহত থাকবে। আমাদের সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে। অনেকেই আছেন নব্য আওয়ামী লীগ। বিএনপি থেকে এসে অনেক আওয়ামী লীগ নেতা হয়ে গেছেন। সে সমস্ত লোকদের খেয়াল রাখতে হবে। এটা আমার কথা নয়, এটা স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার কথা।

বুধবার (২১ আগস্ট) সকালে পশ্চিম দেওভোগ এলাকায় হোসাইনিয়া মমতাজিয়া চুনকা আলিয়া মাদরাসায় দোয়াপূর্ব এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। একুশ আগষ্ট গ্রেনেড হামলায় নিহতদের স্বরণে উজ্জলের উদ্যোগে এ আলোচনা সভা ও মিলাদ মাহফিল আয়োজ করা হয়।

উজ্জল আরও বলেন, যারা বিএনপি থেকে আওয়ামী লীগে আসবে তাদের পরিবারের খোঁজ খবর রাখা। আপনারা খেয়াল রাখবেন, ষড়যন্ত্র কিন্তু চলছে, এটা অব্যাহত থাকবে। তিনি বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনাকে উনিশবার মারা চেষ্টা করা হয়েছে। সর্বশেষ চেষ্টা করা হয়েছিলো একুশে আগষ্ট। আল্লাহ্’র অশেষ রহমতে তিনি বেঁচে যান। কেননা, আল্লাহ্ যাকে পছন্দ করেন, তাকে হত্যা করা যায় না। শুধু প্রধানমন্ত্রীই নয়, নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন মেয়র আইভীকেও চার পাঁচবার মারা চেষ্টা করা হয়েছিলো। আল্লাহ্’র রহমতে সেও কিন্তু রক্ষা পাইছে। যারা মানুষের কল্যানে কাজ করবে, তাদেরকে আল্লাহ্’ই রক্ষা করেন।

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ অষ্ট্রেলিয়া শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও বঙ্গবন্ধু পরিষদ ভিয়েনার অষ্ট্রিয়া’র সভাপতি রবিন মোহাম্মদ আলী বলেন, আজ একুশে আগষ্ট আমাদের মনে রাখতে হবে এটা ইতিহাসের একটা কালো অধ্যায়। আমাদের নতুন প্রজন্মকে জানিয়ে দিতে হবে, আসলে এই দিনে কি ঘটেছিলো? এই দিনে যা ঘটেছিলো, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাসহ আওয়ামী লীগের পুরো নেতৃত্বকে একদিনে একসময় শেষ করে দেয়া। এর নীলনক্সা আকাঁ হয়েছিলো তারেক জিয়ার নেতৃত্বে হাওয়া ভবনে বসে।

আলোচনা শেষে একুশ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় নিহতদেও বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনায় এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দীর্ঘায়ূ কামনায় করে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা যুবলীগের সহ সভাপতি আলী রেজা রিপন, মহানগর যুবলীগের সহ সভাপতি কামরুল হুদা বাবু, সাংগঠনিক সম্পাদক সেলিম আজাহার, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক মোয়াজ্জেম হোসেন লাভলু, ক্রীড়া সংগঠক ইকবাল বাবু, আওয়ামী লীগ নেতা মো. নাসির হোসেন, মহানগর যুবলীগ নেতা মোস্তাক আহমেদ, হাজী আ. রব রনি, ১৫নং ওয়ার্ড যুবলীগের আহ্বায়ক জাকির হোসেন শাহিন, ১৬নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি মোতাহারুল ইসলাম, ১২নং ওয়ার্ড যুবলীগের সাধারন সম্পাদক জাবেদ মিয়া,  ১৬নং ওয়ার্ড যুবলীগ নেতা আলী হায়দার সাগর, মো. সায়েম আহমেদ, মো. ওশিন, মো. লিটন চৌধূরী, মো. শাহজাহান, মো. স্বচ্ছ, মাসুদুর রহমান, বন্দর থানা যুবলীগ নেতা হীমেল খান, আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সংগঠনের যুগ্ম আহ্বায়ক মো. রাজন, মো. আলমগীর প্রমূখ।

২১ আগস্ট, ২০১৯/এনটি/এসপি

উপরে