NarayanganjToday

শিরোনাম

আইভী ও প্রশাসনকে নিয়ে যা বললেন শামীম ওসমান


আইভী ও প্রশাসনকে নিয়ে যা বললেন শামীম ওসমান

শুরুতে চন্দনশীল এবং আবু হাসনাত শহীদ মো. বাদল পরে একই সুরে সুর মিলিয়ে শামীম ওসমানও আইভীকে ইংগীত করে বলেছেন, নৌকার জন্য ভ্যাঁ ভ্যাঁ করে কেঁদেছিলেন। আইসেন নৌকা চাইতে। এবার আর নৌকা পাইবেন না। নৌকা নাই মানে কিছু নাই।

শনিবার (৭ সেপ্টেম্বর) বিকেলে শহরের চাষাড়ায় নবাব সলিমুল্লাহ সড়কে শামীম ওসমানের ডাকা সমাবেশে বক্তব্য দিতে গিয়ে ওইসব কথা বলেন তারা।

এরমধ্যে শামীম ওসমান বলেন, আমরা শেখ হাসিনার কর্মী। কারো পেটে লাত্থি দিতে শিখি নাই। নৌকা পাওয়ার পরে লাঠি দিয়া পিটাইয়া হকার উঠাইয়া দিবেন, এমন শিক্ষা তো আমরা শেখ হাসিনার কাছ থেকে পাই নাই। আগে বিকল্প কর্মস্থান করতে হবে তারপর হকার উচ্ছেদ করতে হবে। এমন কথাই বলেছেন প্রধানমন্ত্রী।

আইভীকে উদ্দেশ্য করে তিনি আরও বলেন, নৌকার জন্য ভ্যাঁ ভ্যাঁ করে কাঁদছিলেন। নৌকা পাওয়ার পর বলেন, আপনি কোনো দলের লোক না। এই কথা সবাই মনে রাইখেন। কাজে দিবে যখন আবার নৌকা চাইতে আসবে।

সিদ্ধিরগঞ্জকে আওয়ামী লীগের আরেক গোপালগঞ্জ উল্লেখ করে তিনি বলেন, ঘটনা ঘটেছে এক ওয়ার্ডে দশ ওয়ার্ডের মানুষকে শুদ্ধ মামলার আসামী করা হয়েছে। যাদের আসামী করা হয়েছে তাদের ৭০ ভাগই আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী। আর বাকি যারা আছেন তারা মোস্ট পপুলার ব্যবসায়ী স্বাধীনতার পক্ষের লোক। এই মামলা কেন, আওয়ামী লীগ সিদ্ধিরগঞ্জে দুর্বল হোকে এমনটা কেউ চাচ্ছে।

তিনি বলেন, আমি পুলিশ সুপারকে ডেকেছিলাম। তিনি আমাকে কথা দিয়েছেন, সুষ্ঠু তদন্ত হবে। আর এর পিছনে যে পুলিশ থাকবে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পুলিশ সুপার ব্যক্তিত্ববান লোক। তিনি মিথ্যা কথা বলবেন না। তিনি আমাকে কথা দিয়েছেন। আশা করি কথা রাখবেন।

শামীম ওসমান বলেন, ওই মামলা যারা দিয়েছেন তারা হয় জামাত শিবিরের লোক নয়তো তাদের বাব-দাদা কেউ রাজাকার ছিলো। রাজাকারের বংশধর। আমি খবর নিয়েছি ওই কাজটা কে করেছে। এই মামলার বাদী পুলিশ অফিসার নিজে জিডি করেছে। তিনি বলেছেন সেখানে তার স্বক্ষার জাল করে মামলা করা হয়েছে। এই কাজটা করেছে সেলিম (সাবেক তদন্ত ওসি)।

তিনি প্রশাসন সম্পর্কে বলতে গিয়ে বলেন, ছোট খাটো কিছু অফিসার আছে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়। তামরা মনে রাইখো আমরা কিন্তু সেই পদের খেলোয়াড়। দুই টেইক্যা পত্রিকা, যে পত্রিকা দেওয়ালে লাগায় সেই সব পত্রিকায় টেক্স দেয়, নিজামের বিরুদ্ধে এই নিউজ করেন, সাজনুর বিরুদ্ধে এই নিউজ করেন। আরে ভাই, ওরা তো নারায়ণগঞ্জেরই মানুষ। আমরা তো ভাই ভাই। খেলতে আসেন কেন? খেলতে আইসেন না।

শামীম ওসমান বলেন, প্রশাসনের ভেতরে থেকে কেউ আছেন অতিউৎসাহি। যারা আগুন নিয়ে খেলতে চাইছে। সরকারের একটা পার্ট পুলিশ প্রশাসন। আমি এমন কোনো কাজ করবো না যা সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট হয়। শুধু বলবো, খেলা শিখাইতে আইসেন না। আমরা কিন্তু সেই ছোটবেলার খেলোয়াড়।

প্রশাসনের প্রতি আহ্বান রেখে শামীম ওসমান বলেন, শুদ্ধি অভিযান চালান। মনে রাখবেন, আমি একটা মানুষ। এরমানে এই না যে নেতাকর্মীরা সব সময় আমার কথা শুনবো। সবারই আত্ম-সম্মানবোধ আছে।

৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে