NarayanganjToday

শিরোনাম

আ.লীগে যোগদান নিয়ে যা বললেন কাউন্সিলর সাদরিল


আ.লীগে যোগদান নিয়ে যা বললেন কাউন্সিলর সাদরিল

সাবেক সাংসদ মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিনের বাড়িতে বর্তমান সাংসদ শামীম ওসমানের স্ত্রী-পুত্রের যাওয়া নিয়ে এবং তাদের আপ্যায়ন করানো নিয়ে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়েছে আওয়ামী লীগ থেকে শুরু করে বিএনপির নেতাকর্মীদের মাঝে। কেউ কেউ এ নিয়ে খবর রটাচ্ছে গিয়াস উদ্দিন তার ছেলেকে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে যোগদান করিয়েছেন।

তবে, এ ব্যাপারগুলোকে রাজনৈতিক প্রতিহিংসা পরায়ন মনোভাবের নোংরা বহিঃপ্রকাশ বলেছিলেন সাবেক সাংসদ গিয়াস উদ্দিন। একই সাথে তিনি বলেছিলেন, একটি পক্ষ এ ব্যাপারটি নিয়ে নোংরা রাজনীতি করছে। এবার সব প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন খোদ কাউন্সিলর সাদরি। সোমবার রাতে তিনি তার ব্যক্তিগত ফেসবুক ওয়ালে পোস্ট দেন।

সাদরলি তার ফেসবুকে একটি পোস্টের মাধ্যমে তার অবস্থান তুলে ধরেছেন। এবং সেখানে তিনি স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন তিনি এই দল ওই দল কোনো দলেই যাচ্ছেন না। এসব খবর, প্রচারণা বিভ্রান্তিকর। কাউন্সিলর সাদরিলে পোস্টটি হুবহু তুলে ধরা হলো

“আসালামুআলাইকুম , সবার প্রতি পরম শ্রদ্ধা ও ভালবাসা নিয়ে কিছু কথা বলছি। আমি গোলাম মুহাম্মাদ সাদরিল নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ৫ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর। আমার পিতা বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্জ্ব মুহম্মদ গিয়াস উদ্দিন , সাবেক সংসদ সদস্য নারায়ণগঞ্জ –৪। আমি প্রতিহিংসার রাজনীতিতে বিশ্বাসী নই , নতুন প্রজন্মকে প্রতিহিংসার রাজনীতি পরিহার করে গঠন মূলক রাজনীতির পথে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া আমাদের দায়ীত্ব ও কর্তব্য , এলাকার জনগন দলমত নির্বিশেষে আমাকে সেবামূলক কর্মকান্ড পরিচালনার জন্য আমাকে কাউন্সিলর হিসাবে নির্বাচিত করেন , আমি একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা এবং সফল রাজনৈতিক ব্যক্ত্যিক্ত আদর্শবান পিতার সন্তান , প্রতিহিংসার রাজনীতি আমার পরিবারের শিক্ষা নয় , মানুষ কে সম্মান দিলে সম্মান পাওয়া যায় এ শিক্ষা আমার পরিবারের। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে বিভিন্ন সমর্থিত প্রার্থীর লোকজন আমার এলাকায় ভোট চাইতে এবং জনসংযোগ করতে আসবে এটা স্বাভাবিক বিষয়…তাই সকল ছোট মনের মানুষদের প্রতি আমার আহবান আসুন আমরা প্রতিহিংসার রাজনীতি পরিহার করে আগামী প্রজন্মকে একটি সুন্দর সমাজ উপহার দেই।

গত কিছুদিন ধরেই একটি বিষয় নিয়ে গুঞ্জন চলছিল , তা নিয়ে আমি আমার বক্তব্য তুলে ধরলাম। বর্তমানে নির্বাচন চলছে সারাদেশেই , আমার বাসায় নারায়ণগঞ্জ -৪ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্যের ছেলে জনাব অয়ন ওসমান সাহেব এসেছিল উনার বাবার জন্য ভোট চাইতে , উনি আমার বাসায় আসার পর আমি তার সাথে কুশল বিনিময় করি , পারিবারিক ঐতিহ্য মোতাবেক তাকে আপ্যায়িত করি।এরপর আজকে বর্তমান সংসদ সদস্য শামিম ওসমান সাহেবের সহধর্মিণী , জনাবা লিপি ওসমান আমাদের বাসায় আসেন উনার স্বামীর জন্য ভোট চাইতে।উনি বাসা থেকে যাওয়ার সময় আমি উনাকে এগিয়ে দেই , যেহেতু আমার পারিবারিক রেওয়াজ অনুযায়ী মানুষকে সম্মান করা আমার দায়িত্ব। তাছাড়া আমি নিজে একজন জনপ্রতিনিধি এই ওয়ার্ডের।এই বিষয় গুলি নিয়ে অনেকে নোংরা রাজনীতি করছেন যা দুঃখজনক ও বিভ্রান্তিকর। আমি কোন রাজনৈতিক দলের পদে নেই বর্তমানে। আমি এই দল ওই দলে চলে যাচ্ছি বলে যেইসব গুঞ্জন চলছে তা নিছক গুজব ও মিথ্যাচার। আমি কোথাও যোগদান করিনি , আপাতত কোন ইচ্ছে ও নেই।আমি আমার ওয়ার্ডবাসীর সেবা করতে চাই , সর্বসাধারণের মাঝেই থাকতে চাই । আমি আমার পারিবারিক রাজনৈতিক ঐতিহ্যের মধ্যে আছি থাকব ইনশাআল্লাহ। সবাইকে অনুরোধ করব এই ধরনের কোন বিভ্রান্তিকর কথা না বলার জন্য আমার সম্পর্কে , যা আমার জন্য বিব্রতকর। আমাদের বাসা মুক্তিযোদ্ধা নিবাসে যে কেউ আসতে পারে ভোট চাইতে। সকল সর্বসাধারণের জন্য আমাদের বাসা উন্মুক্ত।সকলের প্রতি ভালবাসা রইল।”

১৮ ডিসেম্বর, ২০১৮/এসপি/এনটি

উপরে