NarayanganjToday

শিরোনাম

শরীর নয়, মগজ ঝালাইয়ে কাজ করেন লাভবান হইবেন


শরীর নয়, মগজ ঝালাইয়ে কাজ করেন লাভবান হইবেন

এক প্রেমিক আমারে বলছিলো- "তোমার স্তন, নাভি, যোনি, নিতম্ব আমার বউয়ের থাইকা সুন্দর। তোমার শরীরের কার্ভ অদ্ভুত সুন্দর। "

সে হয়তো ভাইবা নিছিলো আমি খুব খুব খুশি হইবো। অতঃপর আমি আমার স্বভাব অনুযায়ী রাইগা যাইয়া তারে চড়ধাবা কিংবা আমার নখের কারুকার্য তার শরীরে না বসায়ে দিয়া শুধু বলছিলাম, আমার "ক" বয়ফ্রেন্ডের পেনিস তোমার থাইকা সুন্দর এবং তিনি বিছানায় অপূর্ব। সেই তুলনায় তুমি নগন্য, কিছুই না। সেদিনের পর থাইকা সে আর আমার সাথে কথা বলে নাই। হয়তো এইটা তার "পুরুষত্ব" নামক জিনিসে আঘাত হানছিলো।

ভাই, আমি অমন মাইয়া না যে আমার শরীর প্রশংসায় আমি মুগ্ধ হইয়া আনন্দে নাচবো কিংবা শরীর বা রূপচর্চায় আরো মগ্ন হবো। উহু! জানেন তো আমার কাছে পৃথিবীর সবথেকে ভয়ংকর এবং বাজে জিনিস হইলো, কেউ যখন আমার শরীরের প্রশংসা করে কিংবা অন্য কোনো রমণীর সাথে তুলনা করে। কান খুইলা আপনারা হেডেমওয়ালা পুরুষগণ শুইনা রাখেন, আমি আমার মতোই সুন্দর, খুবই সুন্দর। আমার সমস্ত অভদ্রতা, অসভ্যতা, বেয়াদবী, ঘাড়ত্যাড়ামি, অসৌন্দর্য নিয়েই অতিসুন্দর আমি।

আমাকে আমেরিকান এইসমস্ত রমণীগণের মতো ভাইবেন না যারা গড়ে ৩ জনের ১ জন প্লাস্টিক সার্জারি করেন পুরুষদের "প্রশংসা" পাবার এবং তাদের চোখে "কাংখিত" হবার নেশায়। আমাকে সেইরকম চাইনিজ মনে কইরেন না যারা "ছোট্ট পা সুন্দর " মর্মে পা ছোট রাখতে গিয়া পঙ্গু বনে যান। আমাকে সেইরকম কোরিয়ান মনে কইরেন না যে নারীগণ তাদের বাচ্চামেয়েদের জন্মদিনের উপহার হিসেবে প্লাস্টিক সার্জারির ব্যবস্থা করেন।

আমি জানি না রমণীগণ পুরুষদের মনোরঞ্জন করতে এবং তাদের "প্রশংসার পাত্র" হয়ে উঠতে নিজের শরীরকে এতো কষ্ট কেন দেন? নিজের শরীরের উপর এতো অত্যাচার কেনো করেন? এতো "ইনসিকিউরিট" তে কেনো ভুগেন? নিজেদের সম্পর্কে জানার চেষ্টা করুন, নিজেকে অনুভব করুন। দেখবেন, আপনিই সবথেকে সুন্দর। আপনার সমস্ত অসুন্দর, স্বকীয়তা নিয়েই অন্যন্যা আপনি। আর যদি পুরুষগণ বেশি বিব্রতকর পরিস্থিতিতে আপনাকে ফেলে, আপনি ডিরেক্ট তাদের পেনিস, যৌনক্ষমতা নিয়ে কথা তুলবেন। বলতে পারেন, "ভাই, এত্তো চিল্লাইয়েন না। একদিন সর্বোচ্চ কয়বার সেক্স করতে পারেন আপনি? চারবার? পাঁচবার? আমি বিশবারের বেশি পারি। সুতরাং, ওই দুইতিন ইঞ্চির জিনিস নিয়া গর্ব কইরেন না! ওইটা গর্ব করার মতো কিছু না।"

পুরুষন্ত্রের বাইধা দেওয়া শারীরিক কাঠামো ( স্তন, কোমর, নিতম্বের মাপ) অনুযায়ী নিজেকে প্রস্তুত করার লক্ষ্যে সময় আর নষ্ট কইরেন না! ওই সময়টুকুতে মগজ ঝালাইয়ের কাজ করুন, বেশি লাভবান হবেন। ডিয়ার নারীগণ, আপনারা কেনো বুঝেন না সৌন্দর্যচর্চা আপনারা করবেন না কারণ আপনি প্রাকৃতিক ভাবেই এতো সুন্দর যে আপনাদের এইসব চর্চার দরকার পড়ে না।

আর হ্যাঁ, পুরুষগণ, আমাকে লজ্জা দিয়েন না, আর ছোট কইরেন না প্লিজ! আমার মগজের, হৃদয়ের প্রশংসা করুন যদি ইচ্ছে হয় কিন্তু দয়াকইরা আমার শরীরের প্রশংসা কিংবা অন্যের সাথে তুলনা কইরেন না!

উপরে