NarayanganjToday

শিরোনাম

সত্যি হলো সেলিম ওসমানের কথা, রঙ বদলেছেন খোকন সাহা!


সত্যি হলো সেলিম ওসমানের কথা, রঙ বদলেছেন খোকন সাহা!

বিভিন্ন সভায় মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেছিলেন, ‘আমরা কোনো পরিবার কেন্দ্রিক রাজনীতি করবো না। আমরা কোনো পরিবার কেন্দ্রিক নই।’ কিন্তু তিনি এই বক্তব্য থেকে ফিরে এসে এরশাদের সুরে বলেছেন, ‘নারায়ণগঞ্জে আওয়ামী লীগ মানেই ওসমান পরিবার!’

৩ নভেম্বর রাত ৮টায় চাষাড়া হীরামহলে এমপি সেলিম ওসমানের সাথে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ, আন্তর্জাতিক কৃষ্ণ ভাবনামৃত সংঘ (ইসকন), হিন্দু কল্যাণ ট্রাস্ট, বাংলাদেশ হিন্দু মহাজোট, হিন্দু বৌদ্ধ খিস্ট্রান ঐক্য পরিষদ, লাঙ্গলবন্দ ¯œান উদযাপন পরিষদ সহ নারায়ণগঞ্জের হিন্দু সম্প্রদায়ের নারী পুরুষের সাথে মত বিনিময় সভায় অমনটাই জানান তিনি। এ তথ্য জানানো হয়েছে সাংসদ সেলিম ওসমানের মেইল থেকে প্রেরিত একটি বার্তায়। 

খোকন সাহারা বলেছেন, অতীতে হিন্দু সম্প্রদায়ের সকল বিপদে আপদে সব সময় সবার আগে ওসমান পরিবারের সদস্যরাই এগিয়ে গিয়েছেন, আমাদের ছায়া দিয়ে সকল বিপদ আপদ থেকে রক্ষা করে রেখেছেন।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় থাকলে বাংলাদেশে হিন্দুরা নিরাপদে বসবাস করতে পারে। ২০০১ সালের বিএনপি জামায়াত জোট সরকারের অত্যাচারের কথা নিশ্চয়ই আপনাদের মনে আছে। তাই বাংলাদেশে হিন্দুদের নিরাপদে বসবাস করতে আগামী নির্বাচনেও আওয়ামী লীগ এবং শেখ হাসিনাকে বিজয়ী করা ছাড়া বিকল্প কোন পথ নাই।

খোকন সাহা বলেন, আগামীতে যদি শেখ হাসিনাকে আবারো প্রধানমন্ত্রী না বানানো যায় তবে আমি খোকন সাহা নারায়ণগঞ্জে কেন বাংলাদেশে থাকতে পারবো কিনা জানি না, জীবিত থাকতে পারবো কিনা সেই বিষয়ে সন্দেহ আছে। আর যদি আপনারা মনে করেন যে আওয়ামী লীগের নেতা হিসেবে বিপদ সব খোকন সাহার উপর দিয়ে যাবে। তাহলে আপনারা ভুল করবেন।

তিনি বলেন, আগামীতে যদি বিএনপি ক্ষমতায় আসে তাহলে বাংলাদেশে হিন্দুরা থাকতে পারবে কিনা সেই বিষয়ে যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে। তাই আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ও শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় আনতে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনে শেখ হাসিনা মনোনীত মহাজোটের প্রার্থী এমপি সেলিম ওসমানকে লাঙ্গল মার্কায় ভোট দিয়ে আবারো জয়ী করতে হবে। এ ছাড়া বিকল্প কোন পথ নাই।

এদিকে খোকন সাহা ওসমান পরিবারের সাথে বিরোধী জড়িয়ে পড়েছিলেন। বিশেষ করে সেলিম ওসমানের বিপক্ষে জোড়ালো বক্তব্য দিয়ে আলোচনায় ছিলেন। এমনকি সেলিম ওসমানের বিরুদ্ধে নির্বাচন করারও প্রস্তুতি নিয়েছিলেন তিনি। সেসময় অনেকেই তার এসব আচরণকে ‘নাটক’ হিসেবেও মনে করতেন। যদিও খোকন সাহা সেসব অস্বীকার করে আসছিলেন।

অপর দিকে সাংসদ সেলিম ওসমানও খোকন সাহাকে আকার ইংগীতে কড়া ভাষায় কটাক্ষ করে বক্তব্য রাখতেন। আবার দৃঢ়তার সাথেও বলতেন, আগের নির্বাচনের মতো এবারের নির্বাচনেও খোকন সাহা তার নির্বাচনী প্রধান ব্যক্তির দায়িত্ব পালন করবেন। তবে, শেষতক সেলিম ওসমানের কথাই সত্য হয়েছে। খোকন সাহা ফিরেছেন সেলিম ওসমানেই।

৪ ডিসেম্বর, ২০১৮/এসপি/এনটি

উপরে