NarayanganjToday

শিরোনাম

তারা কয়েকজন রয়েছেন নজরদারিতে!


তারা কয়েকজন রয়েছেন নজরদারিতে!

নারায়ণগঞ্জে সিটি করপোরেশনের বেশ কয়েকজন কাউন্সিলর পুলিশের নজরদারিতে রয়েছেন। তাদের পাশাপাশি ক্ষমতাসীন দলের আরও কয়েকজনের কার্যক্রম, গতিবিধিও লক্ষ্য করা হচ্ছে। তাদের মধ্যে কাউন্সিলরদের মধ্যে দুলাল প্রধান, শাহ জালাল বাদল, মতিউর রহমান মতি, আরিফুল হাসান অন্যতম। খবর সংশ্লিষ্ট সূত্রের।

সূত্র জানায়, রমজানের জন্য অভিযান কিছুটা স্থিমিত থাকলেও কিছু ব্যক্তিদের উপর কড়া নজরদারি রেখেছে পুলিশ। তারা কি করে কোথায় যায়, আয়ের উৎস, কার কার সাথে তাদের সম্পর্ক এবং তাদের দ্বারা কারা ক্ষতিগ্রস্থ সেসব কিছুই নজরে আনা হচ্ছে। ডাটাও তৈরি করা হচ্ছে তার হিস্ট্রি নিয়ে।

সূত্রটি আরও জানায়, দীর্ঘদিন ধরেই কাউন্সিলর দুলাল প্রধান, শাহ জালাল বাদল, মতিউর রহমান মতি, আরিফুল হাসানসহ আর বেশ কয়েকজনের উপর কাজ শুরু করেছে একটি গোয়েন্দা সংস্থা। তাদের সম্পর্কে সমস্ত তথ্য উপাত্ত ইতোমধ্যে সংগ্রহ করা হয়েছে। সেসব আরও ভালো করে যাচাই বাছাই করা হচ্ছে। এসব প্রক্রিয়া শেষ হলেই গ্রেফতার অভিযানে নামতে পারে পুলিশ। তবে, এ অভিযান ঠিক কবে নাগাদ শুরু হবে সে বিষয়টি ওই সূত্র বলতে রাজি হয়নি।

তথ্যমতে, মাদক ব্যবসা, চোরাই তেল, জমি দখল, জোরজবর, চাঁদাবাজিসহ আরও বেশ কয়েকটি সুনির্দিষ্ট প্রমাণ সংগ্রহ করা হয়েছে। এসব তথ্য উপাত্তগুলো শেষ বারের মতো যাচাই বাছাই করা হচ্ছে। এরপরই অভিযানে নামবে পুলিশ।

প্রসঙ্গত, নারায়ণগঞ্জে পুলিশ সুপার হিসেবে হারুন অর রশীদ যোগদানের পর জেলার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির ব্যাপক উন্নয়ণ হয। ক্ষমতাসীন দলের বাড় বাড়ন্ত যেসব সন্ত্রাসীরা ছিলো তারা অনেকেই এখন নীরবে নিভৃতিতে রয়েছে। কোনো উচ্চবাচ্য নেই। এরমধ্যে ক্ষমতাসীন দলের বেশ কয়েকজনকে গ্রেফতারও করেছে পুলিশ।

এমনকি প্রভাবশালী কোনো ব্যক্তিকেও ছাড় দেওয়া হয়নি। এরমধ্যে অন্যতম হচ্ছেন ডিস ব্যবসায়ী কাউন্সিলর আব্দুল করিম বাবু ওরফে ডিস বাবু এবং আল জয়নাল। তারা দুজনেই এখন কারাগারে অন্তরিণ রয়েছেন। এছাড়াও সাবেক কাউন্সিলর কামরুল হাসান মুন্না, কাউন্সিলর কবির হোসাইন, শাহ আলম গাজী টেনু, মীর হোসেন মীরু, সন্ত্রাসী মোফাজ্জল হোসেন চুন্নসহ আরও অনেককে গ্রেফতার করা হয়।

এছাড়াও পুলিশ সুপার নারায়ণগঞ্জে এসেই জানান দিয়েছিলেন তিনি কোনো দল দেখবেন না, ব্যক্তি দেখবেন না, যারা অপরাধী তারা যত বড় প্রভাবশালীই হোকে কাউকে তিনি ছাড় দিবেন না। তার বলার মতো করেই তিনি কাজ করে দেখিয়েছেন। এরমধ্যে ফুটপাত হকারমুক্ত করেছেন। যানজট নিয়ে কাজ করেছেন। শহরের সব থেকে বড় জুয়ার আসরে অভিযান চালিয়েছেন। পগলা মেরি এন্ডারসনেও অভিযান চালিয়েছেন। যা সর্বমহলে ব্যাপক প্রশংসা কুড়িয়েছে।

১১ মে, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে