NarayanganjToday

শিরোনাম

জিকে শামীমের অফিসে সাংসদ শামীম ওসমান!


জিকে শামীমের অফিসে সাংসদ শামীম ওসমান!

দুর্দান্ত প্রতাপশালী ঠিকাদারদের ‘ডন’ গোলাম কিবরিয়া শামীম ওরফে জিকে শামীমকে চেনেন না এখন কেউই! কেন্দ্রীয় যুবলীগের দাবি ছিলো, শামীম যুবলীগের কেউ নন সে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগের সহসভাপতি। এমন খবরে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগ জানিয়েছে, তাদের দলে জিকে শামীমের কোনো অস্তিত্ব নেই।

তবে, র‌্যাবের হাতে ধরা খাওয়া এই জিকে শামীমের সাথে নারায়ণগঞ্জের অনেকেরই ছিলো সরাসরি যোগাযোগ। বিশেষ করে ঠিকাদারি কাজের সাথে যারা সম্পৃক্ত তেমন ব্যক্তিদের যোগাযোগটা ছিলো একটু বেশি। পাশাপাশি জেলা আওয়ামী লীগের কয়েকজন নেতার সাথেও যোগাযোগ ছিলো জিকে শামীমের। এর সূত্র ধরেই ২০১৮ সালের ২৯ জুলাই জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভাতে দলটির ৭ নম্বর সহসভাপতি হিসেবে জিকে শামীমের নাম প্রস্তাব করা হয়েছিলো। আর এই প্রস্তাবক ছিলেন নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ মো. বাদল।

নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলমও এই কথা স্বীকার করেছেন। নারায়ণগঞ্জ টুডে’কে তিনি বলেন, আমরা জিকে শামীমকে চিনি না। চিনতামও না। সেদিন আমাদের সেক্রেটারি (আবু হাসনাত শহীদ মো. বাদল) জিকে শামীমের নাম প্রস্তাব করেন। তার সাথে সভাপতিরও মত ছিলো। কিন্তু না চেনার কারণে এ নিয়ে আমি, শাসমুল ইসলাম ভূইয়া, বাচ্চু ভাই, মেয়রসহ আরও অনেকেই জোরালো প্রতিবাদ করেছিলাম।

এদিকে র‌্যাবের হাতে আটক হওয়া এই জিকে শামীম আলীগঞ্জ মাঠ প্রসঙ্গে শ্রমিক লীগ নেতা কাউসার আহম্মেদ পলাশকে গুলি করে হত্যার হুমকি দিয়েছিলেন। এ ঘটনায় পলাশ ফতুল্লা মডেল থানায় ২০১৬ সালের ১২ মে নিরাপত্তা চেয়ে সাধারণ ডায়েরিও করেছিলেন। এই হুমকির নেপথ্যে ছিলো, মাঠ রক্ষার্থে উচ্চ আদালতে মামলা করেন পলাশ। আর এ কারণে আটকে যায় অফিসার্স কোয়ার্টারের কাজ।

এ প্রসঙ্গে কাউসার আহম্মেদ পলাশ বলেছেন, ২০১৬ সালের ১২ দুপুর পৌনে দুইটায় এবং একইদিন রাত ৯ টার দিকে যুবলীগের কেন্দ্রীয় নেতা পরিচয়ে জিকে শামীম হুমকি দিয়েছিলেন। হাইকোর্টে আলীগঞ্জ মাঠ নিয়ে মামলা চলছিলো। সেটি উঠিয়ে নিতে তিনি হুমকি দেন। একই সাথে তিনি বলেছিলেন, হাইকোর্টে আসলে প্রকাশ্যে গুলি করে মেরে ফেলবেন।

অপরদিকে জিকে শামীমকে আওয়ামী লীগ-যুবলীগ কিংবা দলটির দ্বিতীয়, তৃতীয় সারির কোনো নেতাই এখন আর চিনেন না। এমন অবস্থা যখন, তখন একে একে নানা ছবি প্রকাশ পাচ্ছে জিকে শামীমের সাথে আওয়ামী লীগ নেতাদের ঘনিষ্ঠতার ছবি। যেখানে যুবলীগের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরীর ছবিই রয়েছে বেশি। এসব ছবি এখন নানা জনের ফেসবুক ওয়ালে ঘুরে বেড়াচ্ছে।

তবে, সেসব ছবির মধ্যে একটি ছবিতে নারায়ণগঞ্জের প্রভাবশালী এমপি শামীম ওসমানও রয়েছেন! ছবিতে দেখা যাচ্ছে জিকে শামীমের অফিসে বসে জিকে শামীমের সাথে খাওয়া-দাওয়া করছেন তিনি। আর এই ছবিটি প্রকাশ করছেন ফ্রিল্যান্স সাংবাদিক অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী ফজলুল বারী। তবে, ছবিটি সম্পর্কে বিস্তারিত তিনি কিছু লিখেননি।

এদিকে, ছাত্রলীগ থেকে যুবলীগে যে শুদ্ধি অভিযান চালানো হচ্ছে এতে নারায়ণগঞ্জের সচেতন মহল থেকে শুরু করে সর্বমহলেই ব্যাপক প্রশংসিত হচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এমন অভিযান অব্যাহত থাকুক, তেমনটিই প্রত্যাশা করেন তারা। পাশাপাশি তারা দাবি তুলেছেন, এমন শুদ্ধি অভিযান নারায়ণগঞ্জেও চালানো হোক। এখানে অনেকেই সরকারি দলের নাম ভাঙিয়ে নানা অপকর্মের সাথে জড়িত রয়েছে। আবার সেই অপরাধীদেরকে প্রশ্রয় দিচ্ছেন কোনো কোনো প্রভাবশালী মহল। ফলে, শেল্টারদাতা থেকে শুরু করে অপরাধীদের বিরুদ্ধে আরও জোড়ালো অভিযানের দাবি করেন নারায়ণগঞ্জবাসী।

প্রসঙ্গত, শুক্রবার (২০ সেপ্টেম্বর) দুপুরের দিকে গুলশান নিকেতনের বাড়ি থেকে জিকে শামীমকে আটক করে র‌্যাব। পরে তাকে নিয়ে তার ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান জিকেবি কোম্পানী প্রাইভেট লিমিটেডে অভিযান চালানো হয়। সেখান থেকে নগদ দেড় কোটি টাকা এবং ১৬৫ কোটি টাকার এফডিআরসহ বেশ কিছু মাদক ও অস্ত্র উদ্ধার করা হয়।

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে